পরকীয়া সম্পর্কে যেসব কথা আপনি জানেন না

ধোনিদের অর্ধনগ্ন ছবি উপহার
Share Button

মানুষ যখন তাঁর সঙ্গীকে আর ভালোবাসতে পারে না, তখনই সে প্রতারণা করে! কিন্তু আসলেই কি তাই? Rutgers University study-এর একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে ৫৬% পুরুষ স্ত্রীর সাথে ভালো সম্পর্ক ও সুন্দর দাম্পত্য জীবন থাকার পরও অন্য নারীর সাথে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলেন। হ্যাঁ, দাম্পত্যে প্রতারণার ব্যাপারে এমন অনেক কিছুই আছে যা আসলে আমরা ভুল জানি। চলুন, জানি এমন ১২টি সত্য, যেগুলো নিঃসন্দেহে আপনাকে ভীষণ বিস্মিত করবে।

১) বেশিরভাগ পুরুষই চিট করার সময়েও স্ত্রীকে ভালোইবাসেন। স্ত্রীকে ভালোবাসেন না বলে তাঁরা প্রতারণা করেন না। বরং নিজেদের সম্পর্কের বর্তমান থেকে হতাশ হয়ে যান বলে প্রতারণা করেন।

২) পুরুষ সাধারণত প্রতারণার জন্য তেমন নারীকেই বেছে নেন যাকে তাঁরা চেনেন এবং যারা তাঁর বেশ আশেপাশেই থাকে। এই জন্যই অফিসে বা বন্ধু/আত্মীয় মহলে পরকীয়ার ঘটনা বেশী ঘটে। তাই নারীরা একটু সচেতন হলেই আসলে ধরে ফেলতে পারবেন যে প্রিয় পুরুষটি কার জন্য আপনাকে ধোঁকা দিচ্ছেন!

৩) অনেক পুরুষই পরকীয়া করেন আসলে নিজের বিয়েকে বাঁচাতে। পুরুষ জীবনে সব চান। স্ত্রীও চাই তাঁর, আবার ফ্যান্টাসি জগতের সুন্দরীও। তাই কাউকেই ছাড়ার পক্ষপাতী নন তাঁরা, জানিয়েছেন লাইসেন্সড সম্পর্ক ও বিয়ে বিষয়ক থেরাপিসট Susan Mandel (PhD)।

৪) যারা প্রতারণা করেন, তাঁদের মাঝে যে কোন অপরাধবোধ থাকে না বিষয়টি মোটেও এমন নয়। বেশিরভাগ পুরুষই সঙ্গিনীর সাথে প্রতারণা করার পর মনে মনে অনুতপ্ত থাকে। তাঁরা এটা জেনেই করেন যে কাজটি খারাপ। তাই সর্বদা সঙ্গিনীর কাছ থেকে লুকিয়েও রাখতে চান।

৫) প্রতারণার সময়ে পুরুষেরা স্ত্রী সাথে ভালো সম্পর্ক রাখেন না, সেটাও ঠিক ধারণা হয়। প্রতারণার শুরুতে সকল পুরুষই স্ত্রীর দিকে একটু বাড়তি মনযোগ, বাড়তি ভালোবাসা দেখিয়ে থাকেন যেন স্ত্রী কিছু বুঝতে না পারেন। তাই হুট করে স্বামীর ভালোবাসা বেড়ে গেলে নারীরা সতর্ক হোন!

৬) Indiana University study-এর রিসার্চ অনুযায়ী পুরুষের চাইতে নারীর প্রতারণা অনেক বেশী “সিরিয়াস” ধরণের হয়ে থাকে। পুরুষেরা সাধারণত পরকীয়ার সঙ্গীর জন্য সংসার ভাঙতে রাজি থাকে না। কিন্তু নারীরা পরকীয়া করলে সেটাও গুরুত্বের সাথেই করেন। এবং, নারীরা ঠিক ততটাই প্রতারণা করেন সম্পর্কে, যতটা পুরুষ!

৭) বেশিরভাগ স্ত্রীই অনেক আগেই বুঝে যান যে তাঁর সঙ্গী পরকীয়া করছেন। কেউ কেউ নিরুপায় হয়ে চুপ থাকেন, কেউ অপেক্ষা করেন সঠিক সময়ের, কেউ দেখেও না দেখার ভান করেন।

৮) একবার প্রতারণার পর সম্পর্ক আসলে ঠিক হওয়া কঠিন, যতক্ষণ পর্যন্ত পুরুষটি অন্য নারীর দিকে মনযোগ দিচ্ছে। প্রায়ই দেখা যায় যে একজন মিষ্টি প্রেমিকা বিয়ের পর খিটখিটে স্বভাবের স্ত্রী হয়ে গেছেন, পুরুষেরা যা মোটেও পছন্দ করেন না। নিজের সম্পর্ক ঠিক করতে হলে প্রথমেই পুরুষটিকে পরনারীর সংস্পর্শ ত্যাগ করতে হবে, তারপর বাকি কথা।

৯) প্রতারণা কিন্তু বিয়েকে টিকিয়েও রাখে। স্বামীরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রতারণা করতে গিয়ে বুঝতে পারেন যে শান্তির গৃহস্থালি জীবনের মূল্য কতটা এবং কিছুদিন “অন্যরকম” জীবনের স্বাদ নেয়ার পর ফিরে আসেন সংসারের মাঝেই।

১০) প্রতারণা করেছেন, ধরা পড়েছেন, সব ভুলে স্ত্রীর সাথে মিটমাটও হয়ে গেছে। এত কিছুর পরে কিন্তু স্বামীরা তাঁর পরকীয়া মিস করেন! সেই উত্তাল সম্পর্কের অভাব তাঁদের মনে সর্বদা থেকেই যায়।

১১) একজন প্রতারক স্বামী এটা ভালোই জানেন যে তিনি তাঁর ভালোবাসার স্ত্রীকে কষ্ট দিচ্ছেন, সন্তানদের ঠকাচ্ছেন এবং নিজের সম্মান বিসর্জন দিচ্ছেন। সব জেনেও নিজেকে ঠেকিয়ে রাখতে পারেন না।

১২) একজন স্ত্রীকে কখনোই দোষ দেয়া যাবে না, যদি তাঁর স্বামী প্রতারণা করেন। একজন চমৎকার স্ত্রীকে ফেলেও পুরুষেরা প্রতারণা করেন শুধু এই কারণে যে তাঁদের জীবনে বৈচিত্র্য চাই। তাই নারীরা, স্বামী প্রতারণা করেছে বলে নিজেকে কখনো ছোট ভাববেন না!

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts