সুন্দরী নারী পুুরুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর!

গাইবান্ধা সুন্দরী মেয়ে
Share Button

সুন্দরী নারী পুুরুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ! নারীর রূপ দেখে পুরুষরা নিজের মন ও চোখকে দমাতে পারেন না। সুন্দরী দেখলে পুরুষরা তারদিকে তাকবেই এটাই স্বাভাবিক। আবার সেই নারী একটু বেশিই সুন্দরী হন, তাহলে লাজলজ্জা ভুলে তার দিকে হাঁ করে তাকিয়ে থাকতেও দেখা যায় অনেক পুরুষকে। তবে সাবধান, সুন্দরীরা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

সুন্দরী কারা? একদল গবেষক বলছেন, আকর্ষণীয় নারীর সান্নিধ্যে আসলে পুরুষের মধ্যে মানসিক চাপ বাড়তে থাকে। এমনকি এই চাপ বাড়ার কারণে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যাওয়ারও আশঙ্কা রয়েছে!

স্পেনের ভ্যালেন্সিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা সুন্দরী নারীদের নিয়ে এমন মতামত প্রচার করছেন। তারা মনে করেন, একজন পুরুষ সুন্দরী নারীর পাশে পাঁচ মিনিট বসলেই নাকি পুরুষের মধ্যে মানসিক চাপ বৃদ্ধি পায়৷ যা শরীরে কোর্ট্রিসল নামক বিশেষ হরমোনের প্রবাহ বাড়িয়ে দেয়। আর বিপত্তি সেখানেই৷ এই হরমোনের বাড়তি প্রবাহ আবার হৃদযন্ত্রের নানা রোগের জন্য দায়ী।

তবে গবেষকরা বলেছেন, পুরুষদের মধ্যে যারা নারীদের কাছ থেকে সবসময় দূরে থাকতে ভালোবাসেন তাদের জন্য সুন্দরীরা একটু বেশি ক্ষতিকর।

৮৪ জন স্বেচ্ছাসেবী পুরুষের উপর গবেষণা চালিয়ে এই তথ্য প্রকাশ করেছে স্পেনের ভ্যালেন্সিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা । এসব স্বেচ্ছাসেবীদের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে এককভাবে একটি কক্ষে বসিয়ে সুডোকু পাজল এর সমাধান করতে বলা হয়। এসময় অপরিচিত সুন্দরী এক নারীকে ঢুকিয়ে দেয়া হয় সেই রুমে। আর তাতেই নাকি অনেকের শরীরে কোট্রিসল এর প্রবাহ বেড়ে যায়৷ কিন্তু নারীর স্থলে কোন পুরুষ রুমে ঢুকলে স্বেচ্ছাসেবী পুরুষদের মধ্যে কোন পরিবর্তন দেখা যায়নি।

গবেষকরা আরো বলছেন, অধিকাংশ পুরুষ তার আশেপাশে কম বয়সী সুন্দরী নারী দেখলে প্রেমের সুযোগ আছে বলে ভাবতে শুরু করেন। সুন্দরীদের পাশ কাটিয়ে চলতে পারেন এমন পুরুষ পাওয়া যাবে না বললেই চলে ।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts