কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় শরীয়তপুরে ছাত্রীর মাথা ফাটাল বখাটেরা

Shariatpur

শরীয়তপুরে বখাটেদের কুপ্রস্তাবের প্রতিবাদে থানায় অভিযোগ করার হুমকি দেয়ায় বাড়িতে ঢুকে এক ছাত্রীকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে বখাটেরা। আহত ছাত্রীকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর পৌরসভার পাকার মাথা এলাকার মতি বেপারীর ছেলে লিটন বেপারীর সঙ্গে সদর উপজেলার ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীর এক বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক হয়। কিন্তু কিছুদিন পর লিটন কুপ্রস্তাব দিলে ওই ছাত্রী তাকে না করে দেয়। এরপর থেকে লিটন মেয়েটিকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। বাধ্য হয়ে তিন মাস আগে মেয়ের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয় পরিবার।

কিন্তু বুধবার সুযোগ পেয়ে মেয়েটিকে পুনরায় কুপ্রস্তাব দেয় বখাটে লিটন। এ সময় মেয়েটি থানায় অভিযোগ করার হুমকি দিয়ে বাড়িতে চলে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লিটন বেপারী (২৩) তার বন্ধু সোহেল সরদার (২২) ও সাগর মন্ডলকে (২৩) নিয়ে মেয়েটির বাড়িতে ঢুকে পরিবারের সদস্যদের সামনেই তাকে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। এক পর্যায়ে মাথায় আঘাত লাগলে মেয়েটি জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে যায়।

পরে বখাটেরা পরিবারের সদস্যদের এ বিষয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য হুমকি দিয়ে চলে যায়। মেয়েটিকে সঙ্গে সঙ্গে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে পরিবারের সদস্যরা।

আহত ওই ছাত্রী জানান, লিটন আমাকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করতো। ওদের কারণে আমার স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। কিন্তু এরপরও ওরা সুযোগ পেলেই আমাকে খারাপ কথা বলতো। আমি থানায় অভিযোগ করার হুমকি দেয়ায় ওরা বাড়িতে ঢুকে মারধর করে।

ওই ছাত্রীর মা বলেন, লিটনরা এলাকায় প্রভাবশালী। ওদের কারণে তিন মাস ধরে মেয়ের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি। এখন থানায় অভিযোগ করার কথা বলায় ওরা বাড়িতে ঢুকে পিতৃহীন মেয়েটিকে লাঠি দিয়ে ইচ্ছেমতো পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিলো।

পালং মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। মেয়ের পরিবার থানায় আসলে আমরা মামলা নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment