কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগ-বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ১০

কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগ-বিদ্রোহীর সমর্থকদের সংঘর্ষ : আহত ১০

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরকাকড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শফিউল্লাহসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজিদুর রহমান জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে চরকাকড়া ইউনিয়নের টেকের বাজারে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শফিউল্লাহ তার সমর্থকদের নিয়ে গণসংযোগ করছিল।

এ সময় হঠাৎ বিদ্রোহী প্রার্থী ফখরুল ইসলাম সবুজের সমর্থকরা হামলা চালালে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শফিউল্লাহসহ অন্তত ১০ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে, শনিবার বিকেল ৪টার সময় জেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সদরের এমপির পোলে পুলিশের হাতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন সোনাদিয়া ইউনিয়নের মেম্বার প্রার্থী বাহার উদ্দিন (৩৮)।

তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। গত ৫ মার্চ সন্ত্রাসী হামলায় মেম্বার প্রার্থী বাহরের দু’হাত ভেঙে যায়।

জানা গেছে, পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের সাগরিয়া বাজারের সন্নিকটে একটি বেবিট্যাক্সি থেকে ৪০টি লোহার রড়, ৬টি বগিদা, ১০টি ঢাল ও ৩৮টি লোহার পাতসহ রফিকুল্ল্যাহ (২৮), জুয়েল উদ্দিন (২০) নামে ২ ব্যক্তিকে আটক করেছে সাগরিয়া ফাঁড়ি থানার পুলিশ।

আটকদের উপজেলা সদরে নিয়ে আসার সময় এমপির পোল নামক স্থানে পুলিশের সঙ্গে সোনাদিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড়ের মেম্বার প্রার্থী বাহার উদ্দিনের তর্কবিতর্ক হয়।

তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে সাগরিয়া ফাঁড়ি থানার এএসআই লুৎফুর রহমান তাকে পর পর দুটি গুলি করেন। এতে একটি গুলি তার বুকে ও আরেকটি তার হাঁটুতে বিদ্ধ হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে হাতিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিচুল হক জাগো নিউজকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সোনাদিয়া ইউনিয়নের সাগরিয়া বাজারে পুলিশের নিরাপত্তা চৌকি অতিক্রম করে একটি বেবিট্যাক্সি দ্রতগতিতে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ তা আটক করে।

এ সময় গাড়িটি তল্লাশি করে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ দুইজনকে আটক করে। পরে পুলিশ আটকদের থানায় নিয়ে আসার পথে মেম্বার প্রার্থী বাহার উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল লোক পুলিশের কাছ থেকে আসামি ছিনিয়ে নেয়ার সময় সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ ৩০/৪০ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে। এতে মেম্বার প্রার্থী বাহার আহত হয়।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment