গাইবান্ধায় জ্বিনের বাদশার ডাকে সারা দিয়ে লাশ হলেন লাইলী

Gaibandha
Share Button

কথিত জ্বিনের বাদশার আহবানে মানিকগঞ্জ থেকে গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় এসে লাশ হলেন লাইলী বেগম (৪০) নামের এক নারী।

রোববার গভীর রাতে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের তাজপুর গ্রাম থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

লাইলী মানিকগঞ্জ উপজেলার সাটুরিয়া উপজেলার হরগজ গোসাইনগর গ্রামের জনৈক নাজিম উদ্দিনের স্ত্রী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রোববার রাতে রাস্তার পাশে লাইলীর লাশ পড়ে ছিল। এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ সময় লাইলীর কাছে রাখা কিছু ছেঁড়া কাগজপত্রে মোবাইল ফোনের নাম্বার পেয়ে পুলিশ তার পরিচয় উদঘাটন করে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই ইসমাইল হোসেন বলেন, লাইলী বেগমের পরিবারের ছেলে সবুজ মিয়া জানিয়েছেন রোববার সকালে কারও সঙ্গে কথা না বলে তিনি বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। এরপর থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

এসআই বলেন, ধারণা করা হচ্ছে গোবিন্দগঞ্জে জ্বিনের বাদশা পরিচয়ে সক্রিয় প্রতারক চক্র অর্থ প্রাপ্তির প্রলোভন দেখিয়ে অথবা সন্তানের ক্ষতির কথা বলে লাইলী বেগমকে ডেকে এনেছে। পরে তার কাছ থেকে তার কাছ থেকে টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নিয়েছে।

ইসমাইল হোসেন আরও বলেন, লাইলীর মরদেহে কোনও আঘাতের চিহ্ন নেই। তাই ধারণা করা হচ্ছে প্রতারিত হয়ে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

জানা গেছে, সোমবার গাইবান্ধা সরকারি হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে লাইলী বেগমের মরদেহ গোবিন্দগঞ্জ থানায় এনে রাখা হয়েছে।

মানিকগঞ্জ থেকে লাইলী বেগমের ছেলে সবুজ গোবিন্দগঞ্জে পৌঁছলে তার কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts