দিনাজপুরে বেড়াতে নিয়ে শিশু নাতনিকে ধর্ষণ

child-rape_bdlatest24
Share Button

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় বেড়াতে নিয়ে গিয়ে আট বছর বয়সী নাতনিকে ধর্ষণ করেছে পাতানো নানা মতিউর রহমান (৩২)। শিশুটি দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বুধবার ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে বীরগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

মতিউর রহমান উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের সোনা চালানি গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে।

গত ৬ নভেম্বর এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেও স্থানীয় মাতবররা সালিশ করার নামে সময়ক্ষেপণ করে। পরে বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি মামলা করার পরামর্শ দেন।

ধর্ষিতার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, পাতানো নানা মতিউর রহমান শিশুটিকে নিজ বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে যায়। রাতে ঘুমিয়ে পড়লে শিশুটিকে ধর্ষণ করে।

এতে শিশুটি রক্তাক্ত জখম হয়। তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন আসলে মতিউর পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন শিশুটিকে বাড়িতে রেখে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে।

বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়ার কথা বলে একই এলাকার জহরুল ও দুলালের সহযোগিতায় সালিশ বৈঠক করে। ইতিমধ্যে শিশুটির শরীরে ইনফেকশন দেখা দেয়।

পরে বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েলুর রহমানকে জানালে তিনি শিশুটিকে থানায় পাঠিয়ে দেন।

সহকারী পুলিশ সুপার সুজন সরকার নিজেই শিশুটির জবানবন্দি গ্রহণ করে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশের তত্ত্বাবধানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

শুক্রবার বীরগঞ্জ থানার ওসি আবু আক্কাস আহম্মেদ জানান, দীর্ঘ ১০ দিন পর শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ধর্ষক মতিউর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts