স্ত্রীর পরকীয়ায় যুবক খুন

murder kupia
Share Button

রাজশাহীর চারঘাটে স্ত্রীর সঙ্গে অন্য ব্যক্তির পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে- এমন অভিযোগ নিয়ে বড় ভাইদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার পর  ছোট ভাই খুন হয়েছেন।

নিহতের নাম কামাল হোসেন। তিনি উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের মধ্যবালাদিয়াড় গ্রামের মৃত সোলায়মান হকের ছেলে।

সোমবার ভোরে উপজেলার নিজ বাড়িতে ভাইদের হামলার শিকার হয়ে কামাল মারা যান বলে তার স্বজনদের দাবি।

খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

চারঘাট মডেল থানার ওসি সায়েদুর রহমান জানান, নিহত কামালের অনুপস্থিতিতে তার বাড়িতে আবদুল মজিদ নামে এক ব্যক্তির অবাধ যাতায়াত ছিল।

কামালের অন্য ভাইরা বিষয়টি সন্দেহের চোখে দেখতো। রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মজিদের সঙ্গে কামালের স্ত্রী জোসনা বেগমের পরকীয়া রয়েছে বলে অভিযোগ করেন তার ভাই আমজেদ, তমজেদ, কামরুল ও সাবদুল।

এ নিয়ে কামালের সঙ্গে ভাইদের বাকবিতণ্ডা হয়। পরে রাতে কামাল স্ত্রীর সঙ্গে ঘুমাতে যান।

ভোরে কামালকে আহত অবস্থায় দেখে স্ত্রী জোসনা বেগম চিৎকার দেন। পরে তাকে উদ্ধার করে পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক কামালকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুরতহাল প্রস্তুতকারী পুলিশ কর্মকর্তা এসআই মজিবুর রহমান জানান, নিহতের গলায় ও শরীরে কয়েকটি স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

নিহত কামালের স্ত্রী জোসনা বেগমের দাবি, ‘অন্য ভাইদের মারপিটে কামাল নিহত হয়েছেন।’

তবে কামালের ভাই তমজেদের দাবি, আমার ভাই কাজের প্রয়োজনে প্রায় সময় বাড়ির বাইরে থাকতো। এসময় মজিদ সকালে এসে রাত পর্যন্ত অবস্থান করত।

তিনি জানান, এ নিয়ে রোববার রাত আটটায় ভাইদের মধ্যে আলোচনার সময় বাক-বিতণ্ডা হয়। তখন বড় ভাই আমজেদকে আঘাত করে নিজের ঘরের দরজা আটকে দেয় কামাল।

পরে রাত সাড়ে ৩টার দিকে কামালের স্ত্রী জোসনা চিৎকার করে। এরপর কামালকে পুঠিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার মৃত্যু হয় বলে জানান তমজেদ।

কামালের গলায় দাগ রয়েছে দাবি করে তার মৃত্যুর জন্য স্ত্রী জোসনার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন তমজেদ।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts