হাতি ‘বঙ্গ বাহাদুর’কে বেড়ি পরাতে ফের চেতনানাশক

হাতিটিকে বেড়ি পরাতে ফের চেতনানাশক
Share Button

ভারত থেকে আসা ‘বঙ্গ বাহাদুর’ নামে বুনো হাতিটিকে ট্রাঙ্কুইলাইজার গানের মাধ্যমে ফের চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে বেড়ি পড়ানোর চেষ্টা চলছে।

রোববার সকাল ১০টার দিকে হাতিটিকে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করা হয়।

বাংলাদেশ বন বিভাগের উপবন সংরক্ষক কর্মকর্তা ড. তপন কুমার দে জানান, ভোর ৫টার দিকে হাতিটির পেছনের পায়ে বাঁধা শিকল ছিড়ে যায়। এতে সে মুক্ত হয়ে জলাশয় থেকে ডাঙায় উঠে খোলা মাঠে ঘোরা ফেরা করতে থাকে।

পরে হাতিটি কয়রা গ্রাম থেকে দুই কিলোমিটার দূরে সোনাকান্দ গ্রাম এলাকায় চলে যায়।

সেখানে তাকে ফের চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে শিকল পরানোর চেষ্টা চলছে।

ঢাকার বন্য প্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের কর্মকর্তা অসীম মল্লিক জানান, শনিবার সকালে উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের কয়ড়া গ্রামে ওই হাতিটির সামনের পায়ের শিকল ছিঁড়ে যায়। এতে সে ছাড়া পেয়ে ওই এলাকার আবদুল সালামের বাড়ির আশপাশের এলাকায় তাণ্ডব চালায়।

তিনি বলেন, বানের জলে ভেসে আসা বুনো হাতিটি দীর্ঘদিন ধরে দেশের কয়েকটি জেলা চষে বেড়িয়েছে। বেশ শক্তি থাকলেও খুব একটা ক্ষতি করেনি।

গত শুক্রবার বাংলাদেশে এসে এভাবে ঘুরে বেড়ানো অতিথি হাতিটির নাম আমরা রেখেছি বঙ্গ বাহাদুর। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে এই নাম দেয়া হয়েছে।

চেতনানাশক দিয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে এটিকে ধরা হয়। রাতেই তার চেতনা ফিরে এসেছে। তবে শারীরিক দুর্বলতার কারণে হাতিটি দাঁড়াতে পারছিল না। খাবার দেয়া ও পরিচর্যা করা হলে শুক্রবার সকালে হাতিটি স্বাভাবিকভাবে দাঁড়ায়। এ সময় পায়ে বাঁধা দড়ি ছিঁড়ে ফেললে তাকে শিকল দিয়ে আটকে রাখা হয়।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts