কেরাণীগঞ্জে শিশু আবদুল্লাহ হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী ‘বন্দুক যুদ্ধে’ নিহত

কেরাণীগঞ্জে শিশু আবদুল্লাহ হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী 'বন্দুক যুদ্ধে' নিহত
Share Button

 ঢাকার কেরাণীগঞ্জে শিশু আবদুল্লাহকে (১১) অপহরণ করে হত্যা ও এসিড দিয়ে ঝলসানো ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী মোতাহার রোববার রাতে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জের চিতাখলাই এলাকায় রবিবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব সদর দফতরের আইন ও গণমাধ্যম শাখা উপ-পরিচালক মেজর রুম্মন মাহমুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শিশু আবদুল্লাহ হত্যা ও এসিড দিয়ে ঝলসানোর মূল পরিকল্পনাকারী মোতাহার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জের চিতাখলাই র‌্যাবের সঙ্গে গুলি বিনিময়কালে নিহত হয়েছেন।

অপহরণের পাঁচ দিন পর গত ২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে কেরানীগঞ্জের মুগার চর এলাকা আবদুল্লাহর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত ৩০ জানুয়ারি শুক্রবার দুপুরে সে অপহরণ হয়েছিল।

অপহৃতের নানা মো. মারফত আলী দ্য রিপোর্টকে জানান, পরিবারের একমাত্র ছেলে আব্দুল্লাহ। মাঠে ক্রিকেট খেলার কথা বলে বের হলে শুক্রবার দুপুর ২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে তাকে অপহরণ করা হয়েছে।

পরে আব্দুল্লাহর মা, এক চাচা ও বাসার পাশের এক ফার্মেসি দোকানির মোবাইল নম্বরে অন্য একটি (০১৮৭৯৩৬১৭৯৫) নম্বর থেকে এসএমএস আসে— ‘সন্ধ্যার মধ্যে বিকাশ’ করে সাড়ে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দেওয়া হলে আব্দুল্লাহকে ছেড়ে দেওয়া হবে। অন্যথায় শিশুটিকে হত্যা করা হবে।’

তিনি আরও জানান, অপহরণকারীদের শর্তমতে তাদের দেওয়া একটি বিকাশ নম্বরে শনিবার রাতেই এক লাখ এবং রোববার দুপুরে আরও এক লাখ টাকা পাঠানো হয়।

এরপরই বন্ধ হয়ে যায় অপহরণকারীদের মোবাইল নম্বরটি।

ঘটনার দিন রাতে আমাদের বাসায় পোশাকধারী পুলিশ হাজির হওয়ার কারণে অপহরণকারীরা তাদের মোবাইল নম্বর বন্ধ করে দেয়।

মোবাইল বন্ধ করার আগে তারা এস‌‌এমএস দেয়— ‘আপনারা পুলিশে খবর দিয়েছেন, আমরা নিষেধ করার পরও পুলিশ বাসায় আসছে কেন? বিষয়টি খুব খারাপ হয়েছে!’

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment