ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের অনৈতিক সম্পর্ক

Rape logo 1
Share Button

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) : ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের অভিযোগে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে চাকুরী থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমাদানের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, পার্বতীপুর তালিমুন্নেছা আলিম মাদ্রাসার বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী শিক্ষক সামসুদ্দোহা দুলু (৫২), ব্যক্তিগত উদ্যোগে গত দুই বছর ধরে মাদ্রাসায় কোচিং চালিয়ে আসছিলেন। ছাত্রীদের অভিযোগ, এসময় তিনি ৮ম শ্রেনির এক ছাত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তুলেন।

গত ১৭ আগষ্ট কোচিং চলাকালে সহপাঠীদের কাছে অভিযুক্ত শিক্ষকের সাথে তার অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের ঘটনা হাতে নাতে ধরা পড়ে। এ ঘটনার পর থেকে ওই ছাত্রী মাদ্রাসায় আসা বন্ধ করে দিযেছে।
ঘটনাটি জানাজানি হলে, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ খাদেমুল ইসলাম নুরী শিক্ষক মন্ডলী এবং মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি সভাপতির সাথে আলোচনা করে আজ বুধবার দুপুরে কমিটির জরুরী সভা ডাকেন।

বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উদ্ভুত পরিস্থিতি বিবেচনা করে ও প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা প্রামানিত হওয়ায় অভিযুক্ত শিক্ষক কে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়। এছাড়া, ঘটনা তদন্তে বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আ: রশিদ কে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠনেরও সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

কমিটির অন্য দু’জন সদস্য হলেন, আরবী বিভাগের প্রভাষক মাহবুবুর রহমান ও অভিভাবক সদস্য জয়নাল আবেদিন।
মাদ্রাসার অধ্যক্ষ খাদেমুল ইসলাম নুরী জানান, আমাদের মাদ্রাসাটি কেবল মাত্র মেয়েদের জন্য, সে কারনে এ ধরনের স্পর্শকাতর ঘটনা ঘটায় অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যাতে অভিভাবকরা আমাদের উপর আস্থা না হারায়।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ নুরল আমিন সরকার বলেন, ছাত্রীদের কাছ নিকট থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর জরুরী সভা ডেকে তাৎক্ষনিকভাবে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর স্থায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts