দুই ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষন

Ivtijing
Share Button

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দুই স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার সকালে থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।

দুই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে এ মামলা করেন। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ সোনাখালী গ্রাম থেকে ফুল মিয়ার ছেলে ধর্ষক ছগির (২০) ও তার মাকে এবং অপরদিকে তাফালবাড়িয়া স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক রবিউলকে (২৫) গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শহরের থানাপাড়ার বাসিন্দা সাবেক পৌর কর্মচারীর মেয়ে ও স্থানীয় হাতেম আলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী গত ২৮ অক্টোবর বিকেলে পৌর শহরের টিএনটি রোডে প্রাইভেট পড়তে যায়।

এ সময় ওঁৎপেতে থাকা ছগির ও তার দলবল ওই স্কুলছাত্রীকে মোটরসাইকেলে তুলে অপহরণ করে। পরে ছগির ওই ছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে।

বুধবার রাতে অপহৃত স্কুলছাত্রীকে ছগিরের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। স্কুলছাত্রীর বাবা মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার সকালে ধর্ষক ছগির ও তার মাকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

এদিকে, উপজেলার তাফালবাড়িয়া গ্রামের গাছ ব্যবসায়ীর মেয়ে ও স্থানীয় নলী তুলাতলা নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রীকে মঙ্গলবার রাতে প্রতিবেশী কালাম শিকদারের ছেলে রবিউল তুলে নেয়। পরে তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে বৃহস্পতিবার রবিউলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মঠবাড়িয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম তারিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পৃথক দুটি ধর্ষণ ঘটনায় জড়িত দুই ধর্ষককেই গ্রেফতার করা হয়েছে। এক ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts