পোকেমন গো-র চরিত্রদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ!

পোকেমন গো-র চরিত্রদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ
Share Button

নতু‌ন ‘অগমেন্টেড রিয়্যালিটি’ গেম পোকেমন গো-র জনপ্রিয়তা এখন তুঙ্গে। মানুষের পোকেমন-প্রীতি যে আক্ষরিক অর্থেই উন্মাদনার পর্যায়ে পৌঁছেছে তা প্রমাণিত হল এক রাশিয়ান মহিলার আচরণে। কারণ তিনি এবার পোকেমন‌ গো-র বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন।

পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, দিন কয়েক আগে নিজের মস্কোর ফ্ল্যাটের বিছানায় শুয়ে পোকেমন গো খেলতে খেলতে তিনি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। মাঝরাত্রে হঠাৎই ঘুম ভেঙে যায় তাঁর। জেগে উঠে তিনি দেখেন, পোকেমন গো-র একটি চরিত্র তাঁর শরীরের উপরে পড়ে রয়েছে, এবং সে তাঁকে ধর্ষণ করছে। তিনি আতঙ্কিত হয়ে লাফিয়ে উঠে স্বামীকে ডাকতেই পোকেমনটি উধাও হয়ে যায়।

পুলিশ স্বভাবতই এই অভিযোগকে গুরুত্ব দেয়নি। তাদের ধারণা, ওই মহিলা মানসিকভাবে অসুস্থ, এবং তাঁর মানসিক চিকিৎসা প্রয়োজন। পুলিশের পরামর্শ মেনে ওই তরুণী মানসিক চিকিৎসকেরও দ্বারস্থ হয়েছিলেন। কিন্তু সেই ডাক্তারও তাঁকে কোনও সাহায্য করতে পারেননি বলে তাঁর দাবি।

বিবাহিতা ওই তরুণীর বান্ধবী ইভান ম্যাকারোভ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘‘কয়েকদিন ধরেই মেয়েটি আমায় বলছিল যে, ওর বাড়িতে নাকি একগাদা ‘পোকেমন’ ঘুরে বেড়াচ্ছে। তাদের নাকি সে একাই দেখতে পায়। তবে ওদের পোষা কুকুরটাও নাকি টের পায় ওই পোকেমনদের অস্তিত্ব। কারণ যখনই মেয়েটি পোকেমন গো খেলে, তখনই নাকি কুকুরটা ঘেউ ঘেউ শুরু করে।’’

মনস্তাত্ত্বিকরা বলছেন, ভারচুয়াল জগতের প্রতি আসক্তি মানুষকে কোন পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারে, তার এক চরম দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে এই পোকেমন গো। এই খেলায় মগ্ন মানুষজনের দুর্ঘটনাগ্রস্ত হওয়ার খবর সারা পৃথিবী থেকেই পাওয়া যাচ্ছে। এবার এল ধর্ষণের অভিযোগও। মনোবিদদের বক্তব্য, ওই মহিলা আসলে ওই গেমের প্রতি এতটাই আসক্ত হয়ে গিয়েছিলেন, যে তাঁর কাছে ভারচুয়াল জগৎটাই হয়ে উঠেছিল বাস্তব। এটা এক ধরনের মানসিক অসুস্থতাই।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts