যে কারণে মেয়েকে পুড়িয়ে মারলো মা

পালিয়ে বিয়ে করায় মেয়েকে পুড়িয়ে মারলো মা
Share Button

পরিবারের সম্মতি ছাড়া বিয়ে করায় নিজের মেয়েকে আগুন দিয়ে হত্যা করেছে তার মা। পুলিশ ওই ঘটনায় মেয়েটির মাকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের লাহোর শহরে।

পুলিশ জানিয়েছে নিহত মেয়ে জিনাত রফিকের (১৮) গায়ে প্রহারের চিহ্ন পাওয়া গেছে। মেয়েটির মা প্রথমে তাকে খাটের সঙ্গে বেঁধে ফেলে এবং তার গায়ে জ্বালানি ছিটিয়ে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এই মাসে তৃতীয়বারের মতো পাকিস্তানে এই ঘটনা ঘটলো। দেশটিতে প্রেম করে বিয়ে করাকে সামাজিকভাবে ঘৃণার চোখে দেখা হয়। এসব ক্ষেত্রে নারীদের ওপর সহিংসতার ঘটনাও বেশি।

গত সপ্তাহে ইসলামাবাদে একটি স্কুল এক শিক্ষিকা বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার গায়ে আগুন দেয়া হয়। পরে ওই শিক্ষিকা মারা যান। এরও একমাস আগে বন্ধুকে পালিয়ে বিয়ে করতে সাহায্য করায় এক কিশোরীকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়।

স্থানীয় পুলিশের সুপার (এসপি) ইবাদত নাসের জানিয়েছেন, তারা নিহত জিনাত রফিকের ভাইকে খুঁজছেন। ঘটনার পর থেকে পালিয়ে রয়েছে। জিনাতের মা পারভিন খুনের কথা স্বীকার করেছেন বলেও জানিয়েছেন নাসের। তবে এতে পরিবারের কেউ তাকে সাহায্য করার কথা তিনি অস্বীকার করেছেন।

গত সপ্তাহে জিনাত এবং তার স্বামী হাসান খান পালিয়ে আদালতে গিয়ে বিয়ে করেন। হাসান জানান, জিনাত যখন তার পরিবারকে তাদের বিয়ের কথা জানায় তখনই তার পরিবারের সদস্যরা তার ওপর নির্মম প্রহার শুরু করে। এতে তার মুখ ও নাক দিয়ে রক্ত বেরোতে থাকে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts