স্কুলছাত্রী ধর্ষণ, সহপাঠীদের বিক্ষোভে ধর্ষক আটক

স্কুলছাত্রী ধর্ষণ, সহপাঠীদের বিক্ষোভে ধর্ষক আটক

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা প্রতিবাদে যখন সারাদেশ উত্তাল হয়ে উঠেছে ঠিক সেই মুহূর্তে বরিশালেও ঘটলো আরেকটি ধর্ষণের ঘটনা। এ ঘটনায় ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে সুমন তালুকদার (৩৮) নামে চার সন্তানের জনক। যদিও ওই ধর্ষককে ইত্যোমধ্যে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার সুমন তালুকদার উজিরপুর উপজেলার চাঙ্গুরিয়া গ্রামের লতিফ তালুকদারের ছেলে। তবে তার জীবন কাহিনী একটি ধর্ষণের ঘটনায়ই সীমাবদ্ধ নয়।

এর আগে এক প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণ করে এক লাখ টাকা জরিমানা দিয়ে রেহাই পান। কিন্তু এবারের ধর্ষণের ঘটনায় ওই ছাত্রীর সহপাঠীরা ফুসে ওঠায় তিনি ফেসেই গেলেন। এখন তার বিচারের দাবিতে উত্তাল হয়ে উঠেছে বরিশাল।

কারণ সমসাময়িক সময়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজছাত্রী সোহাগী জাহান তনুকে হত্যার দাবিতেও বরিশালে নানা কর্মসূচির ডাক আসছে এবং তা পালনও হচ্ছে।

এরই মধ্যে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার স্কুলছাত্রী ধর্ষণের এই ঘটনা বরিশালবাসীকে হতবাক করেছে। কিন্তু জনতার প্রতিবাদ থেমে নেই, চলছে এবং চলবেই। বিশেষ করে এই ধর্ষণের ঘটনা প্রতিবাদে এখানকার প্রশাসনও জনতার সঙ্গে এক কাতারে আসায় বিষয়টি আরও জোরালো রূপ নিয়েছে।

কারণ ধর্ষণের ঘটনায় বিচার চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করার মাত্র ৩ ঘণ্টার মাথায় ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের বিষয়টিও স্বীকার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের নারায়ণপুর স্কুলের নবম শ্রেণির ওই ছাত্রী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে চাঙ্গুরিয়া বড়বাড়ির মোহাম্মদ হাওলাদারের স্ত্রী আলেয়া বেগম তার মোবাইলের মেসেজ ডিলেট করার কথা বলে ওই ছাত্রীকে ঘরে ডেকে নেয়।

এ সময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘরের দরজা বাহির থেকে তালাবদ্ধ করে আলেয়া বেগম চলে যায়। কিন্তু এ সময় বাড়িতে কোনো লোকজন না থাকায় মেয়েটি ডাকচিৎকার করেও কোনো লোকের সাড়া পায়নি।

এর কিছুক্ষণ পরে ওই এলাকার লতিফ তালুকদারের ছেলে সুমন তালুকদার তালা খুলে ঘরে প্রবেশ করে স্কুলছাত্রীকে ধারালো চাকু দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় আলেয়া বেগম ঘরের জানালা দিলে সেই দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেন। বিষয়টি কাউকে জানানো হলে ওই স্কুলছাত্রীকে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় ধর্ষক। কিন্তু ওই দিনই স্কুলছাত্রী বিষয়টি নানিকে জানান।

এ বিষয়টি ছাত্রীর বাবা বৃহস্পতিবার সকালে স্কুলের শিক্ষকদের জানানোর জন্য রওনা হন। পথিমধ্যে ধর্ষক সুমন তালুকদার তার ওপর হামলা চালায়। বিষয়টি এক পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়লে স্কুল শিক্ষার্থীরা ক্ষোভে ফেটে পড়ে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে শত শত শিক্ষার্থী, শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবং স্থানীয়রা একত্রিত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) ঝুমুর বালার দারস্থ হন। এক পর্যায়ে তার পরামর্শ অনুযায়ী ওই শিক্ষার্থী বাদী হয়ে উজিরপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।

ওই অভিযোগের প্রেক্ষিত্রে উজিরপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশিষ কুমার বেলা ৩টায় উপজেলার তেরদ্রোন গ্রামের মাদক বিক্রেতা আনিচের ঘরে জুয়া খোলারত অবস্থায় সুমন তালুকদার গ্রেপ্তার করে। পরবর্তীতে আদালতের মাধ্যেমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment