চায়না স্কলারশীপ সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাধ্যমে আবেদনের নিয়ম

Chinese Government Scholarship

 রায়হানুল ইসলাম রাজীব,

CSC-B ক্যাটেগরীতে চাইনিজ ইউনিভার্সিটির আন্ডারে আবেদন করলে কিংবা ইউনিভার্সিটি স্কলারশীপ সহ বিভিন্ন স্কলারশীপে অনলাইনে আবেদন সম্পন্ন করার পরে আপনার হার্ড কপি ডকুমেন্টস চাইনিজ ইউনিভার্সিটিগুলো দেখতে চায়। তাদের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যেই এই ডকুমেন্টস গুলি বাংলাদেশ হতে কুরিয়ারের মাধ্যমে উক্ত চাইনিজ ইউনিভার্সিটির ইন্টারন্যাশনাল অফিসের ঠিকানায় পাঠাতে হয়।

 যদি ইউনিভার্সিটি আপনার থেকে হার্ড কপি ডকুমেন্টস চায় কিংবা ওয়েবসাইটে লেখা থাকে তবে, ২ সেট ডকুমেন্টস ইউনিভার্সিটি তে সেন্ড করতে হবে। একসেট হবে কালার কপি এবং আরেক সেট হবে নরমাল ফটোকপি।

👉কালার সেটঃ-
1)একসেট কালার কপি তে যা যা থাকবে তা হলো –
আপনার(SSC/HSC/Diploma-এর) সব সার্টিফিকেট এবং মার্কশীটের কালার নোটারি কপি।
মাস্টার্সে যারা আবেদন করবেন তারা শুধু তাদের ব্যাচেলরের সার্টিফিকেট এবং মার্কশীটের কালার নোটারি কপি পাঠিয়ে দিবেন।

2)CSC স্কলারশীপের/ইউনিভার্সিটির স্কলারশীপে অনলাইনে আবেদনকৃত ফর্মের কালার পেজ পাঠিয়ে দিবেন।

3)আপনার পাসপোর্ট এর কালার বায়োডাটা পেজটি।
4)যদি কোনো ভিডিও বানাতে বলে তবে সেটা পেন ডাইভে ভরিয়ে পাঠিয়ে দিবেন।

5)আপনার IELTS/HSK/EPC এর শুধু কালার ফটোকপি দিবেন।নোটারীর প্রয়োজন নেই!

6)মাস্টার্সে আবেদনকারী স্টুডেন্ট যদি Acceptance লেটার সংগ্রহ করে তবে সেটার কালার ফটোকপি অবশ্যই পাঠাবেন।

7)আরও আনুসঙ্গিক যে পেপার্সগুলো রয়েছে যেমন স্ট্যাডি প্লান,রিকোমেন্ডেশন লেটার(২টি),ফিজিক্যাল এক্সামিনেশন ফর্ম এর(২ পেজ)CV,Job Experience Certificate,Research paper, Other Curriculum Activities(থাকলে)সেগুলোর কালার ফটোকপি চাইলে দিতে পারেন। তবে এইসব দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়!আজাইরা ফাইল ভারী হয়ে যায় এবং কুরিয়ার করতে বেশি টাকা লেগে যায়।তাই আমার মতে নাম্বার 7 এর কালার ডকুমেন্টস না দেওয়াই ভালো।

👉 #নরমাল_ফটোকপি_সেটঃ-
1)একসেট নরমাল ফটোকপি তে যা যা থাকবে তা হলো –
আপনার(SSC/HSC/Diploma-এর) সব সার্টিফিকেট এবং মার্কশীটের ফটোকপি করে তারপর আবার নোটারি করতে হবে,আর সেই নোটারীকৃত কপি পাঠাতে হবে।
মাস্টার্সে যারা আবেদন করবেন তারা শুধু তাদের ব্যাচেলরের সার্টিফিকেট এবং মার্কশীটের নরমাল ফটোকপি করে নোটারি করে সেই কপি পাঠিয়ে দিবেন।

2)CSC স্কলারশীপের/ইউনিভার্সিটির স্কলারশীপে অনলাইনে আবেদনকৃত ফর্মের ফটোকপি পেজ পাঠিয়ে দিবেন।
3)আপনার পাসপোর্ট বায়োডাটা পেজটি নরমাল ফটোকপি করে দিবেন।

5)আপনার IELTS/HSK/EPC এর শুধু নরমাল ফটোকপি দিবেন।নোটারীর প্রয়োজন নেই!

6)আরও আনুসঙ্গিক যে পেপার্সগুলো রয়েছে যেমন স্ট্যাডি প্লান,রিকোমেন্ডেশন লেটার(২টি),ফিজিক্যাল এক্সামিনেশন ফর্ম এর(২ পেজ)CV,Job Experience Certificate, Research Paper, Acceptance Letter,Other Curriculum Activities(থাকলে) সেগুলোর নরমাল ফটোকপি দিবেন।

#নোটঃ-
এখন,কালার পেজের সবগুলোকে পরপর সাজিয়ে জেমস্ ক্লিপ দ্বারা একএে করবেন।এরপর,সবগুলোকে পরপর সাজিয়ে জেমস্ ক্লিপ দ্বারা একএে করবেন।এখন এই দুইসেট ডকুমেন্টস কে একটি খামের ভিতর ভরে, খামের উপর অংশে From এর জায়গায় আপনার নিজের নাম,ঠিকানা, পাসপোর্ট নাম্বার,ফোন নাম্বার,ইমেইল ইত্যাদি লেখবেন………………………..

আর “To” অংশে লেখবেন ইউনিভার্সিটির ইন্টারন্যাশনাল অফিসের ঠিকানা,ফোন নাম্বার,ইমেইল। এই সব ইনফরমেশন ইউনিভার্সিটির ওয়েবসাইটে পেয়ে যাবেন।

👉সবশেষে, বাংলাদেশ হতে কুরিয়ার করে চাইনিজ ইউনিভার্সিটির ইন্টারন্যাশনাল অফিসের ঠিকানায় আপনার ডকুমেন্টস পাঠিয়ে দিলেই হবে।

 

লেখকের ফেসবুক লিংক: Rayhanul Islam Rajib

লেখক: রায়হানুল ইসলাম রাজীব,

Chemical Engineering,

Tianjin University, China,

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts