মৌসুমীর হাত কেটে গেছে

মৌসুমীর হাত কেটে গেছে
Share Button

শ্রীফলতলী থানা কমপ্লেক্স হাসপাতালে নেওয়ার পরনাটকের শুটিংয়ে হাত কেটে গেছে অভিনয়শিল্পী মৌসুমী হামিদের। তাঁর বাঁ হাতে পাঁচটি সেলাই দিতে হয়েছে। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে শ্রীফলতলী জমিদারবাড়িতে আজ শনিবার সকালে এই ঘটনা ঘটেছে। এখানে সুমন আনোয়ার তাঁর ‘সংকট’ নাটকের শুটিং করছেন।

জানা গেছে, নাটকের দৃশ্যে রওনক হাসানের সঙ্গে মৌসুমী হামিদের মারামারির একটি দৃশ্য ছিল। তাঁরা দুজন চরিত্রের সঙ্গে অনেকটাই যুক্ত হয়ে পড়েন। মারামারির দৃশ্যটিকে বাস্তবসম্মত করেন। মারামারির একপর্যায়ে মৌসুমী হামিদের কাচের চুড়ি ভেঙে বাঁ হাতে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়। কিন্তু তখনো তাঁরা শট দেওয়া অব্যাহত রাখেন। রক্তক্ষরণ হওয়ায় শট শেষে জ্ঞান হারান মৌসুমী হামিদ। তাঁকে দ্রুত স্থানীয় থানা কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

এই ঘটনার পর মুঠোফোনে যোগাযোগ হয় সুমন আনোয়ারের সঙ্গে। তিনি ‘সংকট’ নাটকের নাট্যকার ও পরিচালক। বলেন, হাসপাতালে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়ার পর মৌসুমী হামিদের জ্ঞান ফিরেছে। তাঁর হাতে পাঁচটি সেলাই দিতে হয়েছে। এখন তিনি পূর্ণ বিশ্রাম নিচ্ছেন। আজ আর তাঁকে শুটিংয়ে অংশ নিতে হবে না।

শ্রীফলতলী থানা কমপ্লেক্স হাসপাতালে মৌসুমী হামিদ, সুমন আনোয়ার ও রওনক হাসানসুমন আনোয়ার জানান, নাটকে রওনক হাসান ডাকাত। মৌসুমী হামিদ তাঁর স্ত্রী। অন্য কারও সঙ্গে স্ত্রীর সম্পর্ক আছে—এই অভিযোগে পরিবারের মধ্যে সংকট তৈরি করেন রওনক হাসান। কলহ এই পরিবারের নিত্যসঙ্গী। রওনক তাঁর স্ত্রীকে তালাক দিতে চান। স্ত্রীকে মারধর করেন। আর তখনই এই দুর্ঘটনা ঘটে।

ঈদের জন্য ‘সংকট’ নাটকটি তৈরি করছেন সুমন আনোয়ার।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts