শাকিবের ওপর হামলা নিয়ে যা বললেন মৌসুমী

শাকিবের ওপর হামলা নিয়ে যা বললেন মৌসুমী
Share Button
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ৫ মে। সেদিন মধ্যরাতে হঠাৎ করেই এফডিসিতে উপস্থিত হন চিত্রনায়ক শাকিব খান। এসেই তিনি ভোট গণনা কক্ষে প্রবেশ করেন। সেখানে নির্বাচন কমিশন ও আপিল বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী।
ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত কমিশনের সদস্যরা শাকিব খানকে সেখান থেকে চলে যেতে বলেন। এরপর শাকিব খান বের হতে চাইলে বাইরে থেকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর একদল লোক তার ওপর আক্রমণ চালায়। নিজেকে বাঁচিয়ে সেখান থেকে শাকিব খান বের হয়ে গেলেও এ নিয়ে চিত্রপাড়ায় চলছে ব্যাপক সমালোচনা।

এ ঘটনা নিয়ে কেউ বলছেন, শিল্পী সমিতির নির্বাচনের দিন গভীর রাতে ভোট গণনার কক্ষে পেছন দরজা দিয়ে ঢুকেছেন শাকিব। কেউ বা বলছেন ভোট গণনা প্রভাবিত করতে তিনি সেখানে গেছেন। আসলে কী হয়েছিল সেই রাতে? এ নিয়ে নির্বাচনের দু’দিন পর মুখ খুললেন মৌসুমী।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা সবাই তখন ভোট গণনা রুমে বসা। এমন সময় হঠাৎ সেখানে শাকিবকে দেখতে পেলাম। চোখে ঘুম ঘুম ভাব। এসেই সে বলল, শিল্পীরা আমার কাছে অভিযোগ করেছেন, তাই পরিস্থিতি দেখতে এসেছি। আমি তো ঘুমিয়েছিলাম, ফোন পেয়ে ঘুম থেকে উঠেই চলে এলাম।’

এরপর শাকিব আপিল বোর্ডের সদস্যদের উদ্দেশে কথা বলেন। শাকিব ঢোকার আগ পর্যন্ত ভোট গণনা কক্ষে আপিল বোর্ড সদস্য খোরশেদ আলম খসরু ভাই ছিলেন। এরপর সেখানে আসেন নাসিরুদ্দিন দিলু ভাই।

শাকিব অভিযোগ করে বলেন, ‘আপনারা তো নির্বাচনকে সুষ্ঠু অবস্থায় রাখছেন না। আপনাদের কারণে নির্বাচন প্রভাবিত হয়ে যাচ্ছে। আপনাদের এখানে থাকার কথা নয়। কেউ নির্বাচন-পরবর্তী অভিযোগ করলে আপনারা তখনই আসবেন।’

সেদিন রাতের ঘটনা প্রসঙ্গে মৌসুমী আরও বলেন, ‘শাকিবের মুখে এসব কথা শোনার একপর্যায়ে খসরু ভাই রেগে যান। তিনি বলে ওঠেন, ‘শাকিব তুমি বারবার খোঁচাচ্ছ কেন?’ তখন পাল্টা জবাবে শাকিব বলল, আমি এখনও সভাপতি, আসতেই পারি। অভিযোগ পেয়েছি, আমাকে দেখতে হবে না, জানতে হবে না। পরে তো শিল্পীরাই আমার কাছে এসব বিষয়ে জানতে চাইবেন। এরপর খসরু ভাই চিল্লাচিল্লি করেন। অবস্থা এমন হয়ে যায়, আমি ভয় পেয়ে যাই। কেউ আর কথা বলতে চাচ্ছিল না।’

মৌসুমীর এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে আপিল বোর্ডের সদস্য খোরশেদ আলম খসরু যুগান্তরকে বলেন, ‘সভাপতি হিসেবে শাকিব খান আসতেই পারেন। তাকে আমরা স্বাগতও জানিয়েছি। কিন্তু তিনি তখন স্বাভাবিক ছিলেন না। তাই তাকে চলে যেতে অনুরোধ করেছি। আর মৌসুমী ম্যাডাম যেসব কথা বলেছেন তা সত্য নয়।’

সেদিন মধ্যরাতে বাইরের ঘটনা প্রসঙ্গে মৌসুমী বলেন, ‘ভোট গণনা রুমে থাকা পুলিশ সদস্যরা তখন বলল, বাইরে চিল্লাচিল্লি হচ্ছে। শাকিব খানকে কেন ভেতরে রাখা হয়েছে। বাইরের লোকরা এসব বলছেন। বাইরের পরিবেশ তখন বেশ থমথমে। তখন মিশা ভাইয়ের সহযোগিতায় শাকিব খানকে বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর বাইরে কে বা কারা তাকে আক্রমণ করে। তাকে লাঞ্ছিতও করে। এ ঘটনার পর আমরা ভয় পেয়ে যাই।
মৌসুমী আরও বলেন, ‘শাকিবের সঙ্গে সেদিন রাতে যা ঘটেছে, তা শিল্পী সমাজের জন্য অপমান। সে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া শিল্পী। জাতীয় সম্পদ। তার গায়ে হাত তোলা মানে সমগ্র শিল্পী সমাজের গায়ে হাত তোলা। এরপর তো কেউ এফডিসিতে ঢুকতেই সাহস পাবেন না।’

এদিকে মৌসুমীর ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, এফডিসিতে সেদিন রাতে যা ঘটেছিল তা নিয়ে তিনি বেশ শঙ্কিত। এ জন্য নির্বাচিত কার্যকরী সদস্য পদ থেকে তিনি পদত্যাগ করতে পারেন। তবে এ ব্যাপারে মৌসুমী স্পষ্ট করে কিছু বলেননি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts