সেনাবিদ্রোহে তুরস্কে আটকে গেছেন কলকাতার অভিনয় শিল্পী ও নির্মাতারা

তুরস্কে আটকে গেছেন কলকাতার তারকারা

সেনাবিদ্রোহের কারণে অশান্ত পরিস্থিতিতে তুরস্ক। আর এই সেনা অভ্যুত্থানের কারণে সেদেশ আটকে পড়লেন টালিগঞ্জের প্রথম সারির অভিনয় শিল্পী ও নির্মাতারা। অভিনেতা যশ, গৌরব, অভিনেত্রী মিমিকে নিয়ে তুর্কিতে আটকে পড়েছেন পরিচালক বিরসা দাশগুপ্ত। তার পরবর্তী ছবির শুটিংয়ে ইস্তানবুলে গিয়েছিলেন তারা। একই ছবির জন্য সেখানে গিয়ে আটকে পড়েছেন মন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

ছবির প্রযোজনা সংস্থা ভেঙ্কটেশ ফিল্মসের পক্ষ থেকে জানা গেছে, এখন সুরক্ষিত আছেন বিরশা সহ ছবির কলাকুশলীরা। তবে শুটিংয়ের কাজ সম্পূর্ণ বন্ধ। আপাতত শহরের একটি হোটেলে রয়েছে গোটা টিম। খবর পেয়ে তাদের ফেরানোর জন্য উদ্যোগ নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের সঙ্গে এবিষয়ে যোগাযোগ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

নানাভাবে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয় তাদের সঙ্গে। সে দেশে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। পরে তা চালু হলেও নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে পরিষেবা। ইন্টারনেটের মাধ্যমেই টলিগঞ্জের অন্যান্য কলাকুশলীরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। পরে পরিচালক বীরসা দাশগুপ্ত টুইট করে জানান, তারা নিরাপদে আছেন। শুটিংয়ের পরিস্থিতি না থাকায় আপাতত হোটেল আটকে আছেন তারা। এই পরিস্থিতিতে তুরস্কে আর শুটিং চালানো হবে কি না, কিংবা শুটিং বাতিল করা হবে কিনা, তা নিয়েও ভাবনাচিন্তা চলছে।

তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থানের কারণে ইস্তানবুল বিমানবন্দর থেকে ভারত আসার ফ্লাইট বাতিল করেছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। টলিগঞ্জের কলাকুশলীরা তাই চাইলেও এখনই দেশে ফিরতে পারবেন না। ব্রাত্য, মিমিদের আটকে পড়ার খবরে স্বভাবতই উদ্বেগ ছড়ায় কলকাতার সিনেমাপাড়ায়। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, তুর্কিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts