আরশোলার দুধ দিয়ে কী তৈরি হবে জানেন?

আরশোলা

বৈজ্ঞানিক গবেষণায় সব কিছুই সম্ভব। তেমনই একটি অবিশ্বাস্য তথ্য প্রকাশ করেছেন সম্প্রতি বেঙ্গালুরুর গবেষণা সংস্থা ইনস্টেম (ইনস্টিটিউট অফ স্টেম সেল বায়োলজি অ্যান্ড রিজেনারেটিভ মেডিসিন)। এই গবেষণা সংস্থার বক্তব্য, এক বিশেষ ধরনের আরশোলা প্রজাতির পাকস্থলীতে প্রাপ্ত দুধ নাকি পুষ্টিগুণে ভরপুর। এই বিশেষ প্রজাতির নাম Diploptera punctata বা ডিপ্লোপটেরা পাংকটাটা।

গবেষণা বলছে এই দুধের ক্রিস্টাল পর্যালোচনা করে দেখা গিয়েছে যে এতে নাকি রয়েছে সব ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড, সুষম পরিমাণ ফ্যাট এবং চিনি। গবেষক দলের প্রধান রামস্বামী জানিয়েছেন, এটি একটি উচ্চ-ক্যালোরি-সম্পন্ন সুষম খাদ্য। তাই সাপ্লিমেন্ট হিসেবে এই খাদ্য অত্যন্ত উপযুক্ত।

এই গবেষণাটি সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অফ ক্রিস্টালোগ্রাফিতে। জানা গিয়েছে, আরশোলার দুধের একটি ক্রিস্টাল থেকে যে পরিমাণ এনার্জি তৈরি হয় তা সমপরিমাণ মোষের দুধ থেকে উদ্ভুত এনার্জির তুলনায় তিনগুণ বেশি। তবে কি সত্যিই এবার আরশোলার দুধের সাপ্লিমেন্ট আসতে চলেছে বাজারে?

বিষয়টা গা ঘিনঘিনে বটে তবে এমন বহু ওষুধ এবং ফুড সাপ্লিমেন্ট রয়েছে বাজারে যেখানে বিভিন্ন প্রাণী এবং উদ্ভিদের নির্যাস ব্যবহৃত হয়। তাই আরশোলার দুধের সাপ্লিমেন্ট যদি বাজারে আসে এবং চিকিৎসক ও পুষ্টি বিশেষজ্ঞেরা যদি তা খেতে বলেন, তবেও কি পিছিয়ে যাবেন?

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts