উত্তর কোরিয়ায় বিয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি

north-korea-president

উত্তর কোরিয়ায় বিয়ে করতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়াও সে দেশের নাগরিকদের দেশের বাইরে যাওয়া বা অন্য দেশ থেকে দেশে ফেরার ব্যাপারে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

এ রকম ‘বিতর্কিত’ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ শাসক কিম জং উন।
দেশটির ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পার্টির কংগ্রেসকে সামনে রেখে এ ফরমান জারি করা হয়।

এই কংগ্রেসের অধিবেশন চলবে পাঁচ দিন ধরে। ভাবছেন, এরপরই নিষেধাজ্ঞার কড়াকড়ি কমবে। সে কথা ভুলে যান। অধিবেশনের পরের ৭০ দিন ধরে চলবে দেশবাসীর আনুগত্যের ‘পরীক্ষা’।

শাসক দল তথা কিম জং উনের প্রতি আনুগত্য দেখাতে এই সময় উৎপাদন বাড়াতে অতিরিক্ত সময় ধরে কাজ করবেন তারা।

উত্তর কোরিয়ার শাসক দল ‘ওয়ার্কার্স পার্টি’র শেষ অধিবেশন হয়েছিল ৩৬ বছর আগে, ১৯৮০ সালে। কংগ্রেসের সেই অধিবেশনেই কিম ইল সুং-য়ের থেকে ক্ষমতা হস্তান্তরিত হয়ে দেশের সর্বোচ্চ ক্ষমতার অধিকারী হন বর্তমান শাসক কিমের বাবা কিম জং ইল।

বাবার মতোই এই অধিবেশনের মাধ্যমে নিজের ক্ষমতা আরও বাড়ানোর সুযোগ নিতে চান ৩৩ বছরের কিম জং উন। অধিবেশনের প্রস্তুতিতে বা তা চলাকালীন যাতে কোনও রকম ব্যাঘাত না ঘটে সে জন্য সব রকমের প্রচেষ্টাই শুরু করেছেন তিনি। আর তাই এ সময় বিয়ে করা যাবে না।

অন্ত্যেষ্টি ক্রিয়া বন্ধ রাখতে হবে। এমনকী, দেশের বাইরে যাওয়া বা বিদেশ থেকে দেশে ফেরাও যাবে না। এই কংগ্রেসেই উত্তর কোরিয়াকে পরমাণু ক্ষমতাসম্পন্ন রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করার মনোবাসনা রয়েছে কিমের। এমনকী, দেশের অগ্রগতি নিয়ে তাঁর ভবিষ্যৎ ভাবনাও জানাবেন কিম।

সুপ্রিম লিডারের ইচ্ছায় বাড়ানো হয়েছে নিরাপত্তার ঘেরাটোপ। শুধু তাই নয়, যখনতখন ঘরে ঢুকে খানাতল্লাশি করা নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts