একটি সহজ কাজ করলেই হওয়া যাবে কোটিপতি!

taka
Share Button

পার্থিব বিষয়-আশয় সম্পর্কে নিতান্ত উদাসীন না হলে, সুখী জীবনযাপনের জন্য অর্থের প্রয়োজনীয়তা অবশ্যই শিকার করবেন সকলে। কিন্তু আর্থিক স্বচ্ছলতা অর্জনের কোনও নিশ্চিত উপায় রয়েছে কি? সেলফ-মেড মিলিয়ানেয়ার ডেভিড বাখ বলছেন, রয়েছে। এবং তার জন্য করতে হবে একটি সাধারণ কাজ।

‘দা অটোমেটিক মিলিয়ানেয়ার’ নামক বইয়ে ডেভিড পরামর্শ দিচ্ছেন, ‘আমরা যখনই কোনও অর্থ রোজগার করি, তখনই আমরা অন্যদের পাওনা মেটানোর কথা ভাবতে শুরু করি। কোথায় টেলিফোন বিল বাকি, কোথায় ইলেকট্রিক বিল বাকি, কার কাছে ধার রয়েছে, সেই সমস্ত সেই টাকা দিয়ে মিটিয়ে দিতে চেষ্টা করি। তার পর অবশিষ্ট টাকাটুকু নিজের জন্য রাখি। এটা একেবারে ভুল মানসিকতা। আসলে হাতে টাকা আসার পরে প্রথমেই নিজের কথা ভাবা উচিত।’

ডেভিড বলছেন, তাঁর পরামর্শ মেনে চললে অদূর ভবিষ্যতে নিশ্চিত ভাবে কোটিপতি হয়ে যাওয়া যাবে। কী সেই পরামর্শ? ডেভিড বলছেন, ‘বেশি কিছু না, শুধু আপনি প্রতি ঘন্টায় গড়ে যা উপার্জন করছেন, সেই পরিমাণ অর্থ প্রতি দিন সঞ্চয় করতে হবে আপনাকে।’কী রকম? ডেভিডের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, ধরুন, আপনি মাসে ৩০ হাজার টাকা রোজগার করেন। অর্থাৎ প্রতি দিন গড়ে হাজার টাকা আপনার উপার্জন। দিনে আট ঘন্টা করে হয়তো আপনাকে কাজ করতে হয়। অর্থাৎ প্রতি ঘন্টায় আপনার রোজগারের পরিমাণ ১২৫ টাকা। এই পরিমাণ টাকা আপনি প্রতি দিন নিয়ম করে সঞ্চয় করে যান।

ডেভিড বলছেন, প্রচুর অর্থ রোজগারের প্রধান ভিত্তি গড়ে ওঠে অর্থ সঞ্চয়ের মাধ্যমে। কাজেই সঞ্চয়ে আগ্রহী হতেই হবে। এবং সঞ্চয়ের পরিমাণ বাড়ানোর জন্য, ডেভিডের নির্দেশিত কৌশলটিই সবচেয়ে কার্যকর, এমনটাই দাবি তাঁর। ‘এই পদ্ধতিতে নিয়মিত সঞ্চয় এবং বিবেচনা সহযোগে বিনিয়োগের কাজ যদি আপনি করে যেতে পারেন, তা হলে কয়েক বছরের মধ্যেই আপনি কোটিপতি হতে পারবেন। এ ব্যাপারে আমি গ্যারান্টি দিতে পারি,’ লিখছেন ডেভিড।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts