‘কিচ্ছু ভালো লাগে না’ সমস্যার সমাধান!

Share Button

‘কিচ্ছু ভালো লাগে না’—- এই রোগে আক্রান্ত অনেক মেয়েকে আমি চিনি।আর চিকিৎসক হবার বদৌলতে এমন অনেক মহিলা রোগী পাই যারা মাথায় ব্যাথা, পিরিয়ডের সমস্যা, ঘুম হয় না,ওজন কমে/বেড়ে যাচ্ছে ইত্যাদি সমস্যা নিয়ে এলেও একটু সময় নিয়ে হিস্ট্রি নিলে দেখা যায় এরাও এই ‘ভালো লাগে না’ রোগে আক্রান্ত !

এরা জীবন নিয়ে খুব হতাশ।বেঁচে থাকার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে অনেকে।মূল কারণ— জীবনের প্রতি বিতৃষ্ণা।এক একজনের ক্ষেত্রে এক এক কারন।তবে মোটামুটি কমন কিছু কারন হচ্ছে অনেকটা এমন —– অতীত কোন সম্পর্ক, স্বামীর অবহেলা, শিক্ষিত মেয়েদের ক্ষেত্রে বাচ্চা সংসারের জন্য নিজের ক্যারিয়ার স্যাক্রিফাইস করার আত্মগ্লানি, বিবাহিত সম্পর্কে থাকার পরেও তৃতীয় কারো সাথে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া ইত্যাদি।

এসব সমস্যাগুলোর যদিও মেডিসিন দিয়ে তেমন চিকিৎসা সম্ভব নয়।এসব কেসে কাউন্সিলিং খুবই জরুরী।

জীবনের প্রতি হতাশ হয়ে যাওয়া প্রতিটি মানুষের একটা করে লম্বা কষ্টমাখা গল্প থাকে।এই গল্পটা যখন সে আপনাকে বলতে থাকবে তখন সে ফিরে যাবে ঐ সময় গুলোতে।গল্পটা বলার সময় কখনো সে কেঁদে উঠতে পারে।কখনও খানিকটা থেমে আবার শুরু করবে।ক্ষনে ক্ষনে তার ফেসিয়াল এক্সপ্রেশন বদলে যেতে পারে।একজন মানুষ যে কতটা অসহায় হতে পারে এই কান্নামাখা অব্যক্ত গল্পগুলো শুনলে টের পাওয়া যায়…………..

আমার নিজস্ব কিছু ‘সহজ কথা’ আছে হতাশ মানুষগুলোর জন্য, একান্তই আমার নিজস্ব ধারনা এবং জীবনকে দেখার উপর ভিত্তি করে তৈরি কথাগুলো, সুতরাং ভুল হলেও হতে পারে।

#সবার আগে নিজের ক্যারিয়ার গড়বেন। এ ইস্যুতে কোন কম্প্রোমাইজ করা চলবে না। মইরা গেলেও না।ঘর সংসার বাচ্চা সাথে নিয়ে যা করা সম্ভব,হোক সামান্য, তাই করবেন। সংসারটাও আপনার এটা কিন্তু মাথায় রাখতে হবে।একজন মেয়ে যখন মা হয়ে যায় তখন তাকে হতে হয় ‘দশভুজা’।সন্তান সারাজীবন ছোট থাকবে না।সুতরাং হতাশ হবার কিচ্ছু নেই।নাহয় একটু দেরি করেই শুরু হলো আপনার ক্যারিয়ার।সবাইকে যে BCS ক্যাডার হতে হবে(বয়সের জন্য বললাম) এমন তো কোন নিয়ম নেই, তাই না?
So be relaxed,ভরসা রাখুন নিজের উপর, আপনি অবশ্যই পারবেন।
.
.
#আত্মসম্মান, আত্মমর্যাদা কক্ষনো বিসর্জন দিবেন না।এগুলো আপনাকে strong personality সম্পন্ন মানুষ হিসেবে রিপ্রেজেন্ট করবে।মনে রাখবেন, একজন মেয়ে হিসেবে শারিরীকভাবে প্রাকৃতিকভাবে আপনি খানিকটা দুর্বল হলেও মনের জোরে দশজন ছেলের থেকেও শক্তিশালী হতে পারবেন আপনি, যদি একজন ব্যক্তিত্বময়ী নারী হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে পারেন।
.
.
#নিজের Gut feelings -কে সব সময় প্রাধান্য দিবেন।অনেক সময় আমরা যেটা চাই সেভাবে নিজেকে বোঝাই কিন্তু মনে রাখবেন আপনার সাবকন্সাস মাইন্ড কখনোই আপনাকে ভুল সিগনাল দিবে না ।
Trusting your ‘Gut Feeling’ is often the best strategy to save yourself.
.
.
#নিজের আবেগ সব সময় নিয়ন্ত্রণে রাখবেন। মেয়েরা আবেগের কারনে ভিক্টীম হয় ঘর বাইরে সব জায়গায়, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই।
.
.
#কাউকে বিশ্বাস করার আগে ১০০ বার ভাববেন।সে যেই হোক না কেন- কলমা পড়া জামাই থেকে কলিজার টুকরা bf থেকে কাজের বুয়া, ড্রাইভার , এমনকি জিগিরী দোস্ত।চোখ বন্ধ করে কোন পুরুষকে কখনোই বিশ্বাস করবেন না।যে পুরুষ বলে ‘স্মৃতি ধরে রাখার জন্য নিজেদের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের স্মৃতি মোবাইলে রেখে দেই’ অবশ্যই বুঝবেন তার মধ্যে বড় সড় ভেজাল আছে, সে হোক জামাই বা অন্য কেউ।তবে এটাও মাথায় রাখতে হবে Trustworthy পুরুষও আছে এখনো পৃথিবীতে।
মনে রাখবেন -Be careful who you trust, the devil was once an angle.
.
.

#নিজেকে ভালবাসবেন। এটা খুব গুরুত্ব পূর্ণ। নিজে যদি ভালো না থাকেন কখনোই অন্যকে আপনি ভালো রাখতে পারবেন না।নিজের যত্ন নিন।সব সময় সত্যকে পাশে রাখবেন। তা যত কষ্টের হোক।মনে রাখবেন সত্যের মতো শক্তিশালী আর কিছু নেই।

#অতীত নিয়ে একদম ভাববেন না। মনে রাখবেন অতীত জীবনের একটা অংশ।একে জীবন থেকে বদলে ফেলার বা বাদ দেবার কোন সুযোগ নেই।সুতরাং just accept & admit your past.তবে অবশ্যই অতীত থেকে শিক্ষা নিবেন।বর্তমান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ুন। অতীত নিয়ে ভাবার সময় নাই–এভাবে ভাবুন, দেখবেন আপনি ভালো বোধ করছেন।তখন জীবন আর কি পেইন দিবে আপনাকে।উল্টো রেসপেক্ট করবে আপনার ঘুরে দাঁড়ানোর এটিচিউডকে।

ভালো থাকুন
সুস্থ থাকুন
সুন্দর থাকুন
জীবন কে ভালোবাসুন।

লেখক : Warda Amin

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts