পর্ণস্টার প্রেমিকার ইচ্ছা যৌন মিলন, তবুও ধর্ষণ করলেন প্রেমিক!

পর্ণস্টার প্রেমিকার ইচ্ছা যৌন মিলন, তবুও ধর্ষণ করলেন প্রেমিক!
Share Button

জোনাথন কপেনহ্যাভের। মার্শাল আর্টিস্ট সার্কিটে খ্যাত ‘ওয়ার মেশিন’ নামে। তাঁর বিরুদ্ধেই এবার পর্ণস্টার বান্ধবীকে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল। যদিও প্রাণ হারাতে হয়নি তাঁর বান্ধবী ক্রিস্টিন ম্যাকিনডেকে।

জোনাথন কপেনহ্যাভের চার বছর আগেই নিজের নাম বদলে ওয়ার মেশিন করেছিলেন। তার পরেই তাঁর সঙ্গে সখ্য জন্মায় মার্কিন মুলুকের বিখ্যাত পর্ণস্টার ক্রিস্টিন ম্যাকের সঙ্গে।

দিন কয়েক আগে বান্ধবীর ফ্ল্যাটেই রাত্রে ক্রিস্টিন আবদার করেছিলেন ‘রেপ ফ্যান্টাসি’-র। তারপরেই সত্যিসত্যিই বান্ধবীকে ধর্ষণ করে মুখের চোয়াল ভেঙে দেন ওয়ার মেশিন। ২৫ বছরের ক্রিস্টিন পরের দিনই ট্যুইটারে নিজের চোয়াল ভাঙা ছবি পোস্ট করে সকলকে চমকে দেন।

ক্রিস্টিন ম্যাক ও ওয়ার মেশিন
ক্রিস্টিন ম্যাক ও ওয়ার মেশিন

তার পর পুলিশেরও দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। আদালতে তিনি বলেছেন, ‘আমি কখনই চাইনি জোরপূর্বক ও আমাকে ধর্ষণ করুক। অথচ ও সেটাই করল।’ এমএমএ ফাইটিং থেকে ফেরার পর যৌন সঙ্গম করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন জোনাথন। তার বদলে রেপ ফ্যান্টাসির গোঁ ধরেন পর্ণস্টার বান্ধবী। তারপরেই ক্ষিপ্ত হয়ে জোরপূর্বক সঙ্গম ও মারধোর।

কতটা গুরুতর ক্রিস্টিনের চোট? ক্রিস্টিন নিজেই জানিয়েছেন, চোয়াল, চোখ ও নাকের চারপাশের মোট ১৮টি হাড় ভেঙে গিয়েছে। বেশ কয়েকটি দাঁতও ভেঙে গিয়েছে। ক্রুদ্ধ বয়ফ্রেন্ডের হাত থেকে বাঁচতে প্রতিবেশীর বাড়িতে পালিয়ে প্রাণে বাঁচেন তিনি।

আদালতে যদিও ওয়ার মেশিন জানিয়েছেন, ‘প্রকৃত পুরুষরাই রেপ করে।’ ওয়ার মেশিনের বিরুদ্ধে এর আগেও ৩৪টি অভিযোগ রয়েছে। যার মধ্যে ৫টি যৌন হেনস্থা ও ৩টি খুনের চেষ্টার অভিযোগ।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts