বৃদ্ধের সামনে তরুণীর যৌন উত্তেজনাকর নাচ, অতঃপর যা ঘটলো

বান্ধবীর নগ্ন ছবি ও ভিডিও দেখে ফেলায় স্কুলছাত্রকে…
Share Button

শত বছরের এক বৃদ্ধের সামনে আপত্তিকর নাচের কারণে এক সেবিকাকে গ্রেপ্তার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ওহিওর পুলিশ। বৃদ্ধ একটি নার্সিং হোমে ছিলেন এবং ওই বৃদ্ধকে দেখাশোনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল সেবিকার ওপর। আর ওই বৃদ্ধার সামনে সেবিকার আপত্তিকর নাচকে যৌন হয়রানির সামিল মনে করে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

সেবিকার নাম ব্রিটানি ফুল্টজ। বয়স ২৬ বছর। ওহিওর আদালত তার বিরুদ্ধে ‘ফোর্থ ডিগ্রি গুরুতর অপরাধে’র অভিযোগ এনে গ্রেপ্তার করেছেন।

জানা যায়, ওই সেবিকা দীর্ঘদিন ধরে কেয়ার হোমটিতে কাজ করছিলেন। কিন্তু ঘটনার দিন কেন তিনি বৃদ্ধের সামনে আপত্তিকর নাচ নেচেছিলেন তা জানা যায়নি। ওই নাচের ভিডিওটি ধারণ করেছিলেন ওখানকার আরেক কর্মী। ভিডিওতে সেবিকার কথাবার্তায় কিছুটা যৌন উত্তেজনার ইঙ্গিত ছিল।

ভিডিওর এক স্থানে তিনি বলেন, ‘আমি তোমাকে একটি নতুন জিনিস দেখাবো। আমি একজন বালিকা। তুমি জানো, বালিকা মানে কি?’ অর্থাৎ এসব বলে তিনি তাকে যৌন আকর্ষণ করার চেষ্টা করছিলেন যা আইনের চোখে অপরাধ।

ভিডিওতে দেখা যায়, সেই সেবিকা বৃদ্ধকে নানাভাবে যৌন আকর্ষণ করার চেষ্টা করেন।

এন্থনি বাথ নামের অনুসন্ধানকারী দলের এক সদস্য বলেন, ‘এটা মূলত এক ধরনের যৌন হয়রানি। এটা খুবই জঘণ্য অপরাধ, কারণ তরুণী সে বৃদ্ধের শরীরে হাত দিয়েছেন, অথচ বৃদ্ধা তা চাচ্ছিলেন না।’

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি তাকে হাজতে রাখা হয়েছিল। তারপর তাকে জামিন দেওয়া হয়। গত ২১ ফেব্রুয়ারি আবার তাকে আদালতে তোলা হয়। কিন্তু সেদিনও রায় হয়নি। পরে আবার আদালত বসবে এবং তার কী শাস্তি হয় তার তা জানা যাবে।

ওহিওর ‘দ্য কমন্স অব প্রভিডেন্সে’র নির্বাহী পরিচালক স্টাচি লেহেমকুল বলেন, ‘প্রথমে তাকে প্রশাসনিক ছুটি দেওয়া হয়েছিল। তারপর তাকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে। লোকাল পুলিশের সঙ্গে আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি। পরবর্তী তথ্য না পাওয়া পর্যন্ত কিছু জানা যাচ্ছে না।’

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts