যৌনতা বিনিময় করলে ব্যাচেলর মেয়েদের বাসা ফ্রি

টু লেট
Share Button

আমাদের দেশে বাসা ভাড়া নিতে গিয়ে ব্যাচেলরদের কত-না ঝক্কি পোহাতে হয়। বাড়ির মালিকের এক গাদা শর্ত মানা তো আছেই, গুনতে হয় অতিরিক্ত অর্থও। কিন্তু এই বাড়ি ভাড়া নিয়ে অদ্ভুত বিজ্ঞাপন দেখা গেছে যুক্তরাজ্যে। সেখানে বলা হয়েছে, ব্যাচেলর মেয়েদের বাসা ভাড়া দেওয়া হবে, এ ক্ষেত্রে অর্থ মুখ্য নয়। যৌনতা বিনিময় করলেই বাসা ফ্রি

সম্প্রতি ব্রিটিশ দৈনিক ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যের ক্রেইগসলিস্টসহ বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইটে এ ধরনের শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়েছে। ওই সব বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, যৌনতার বিনিময়ে ব্যাচেলর মেয়েদের বাসা ভাড়া দেওয়া হবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্রেইগসলিস্ট নামের ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ফ্রিতে বাসা ভাড়া দেওয়া হবে। বিনিময় হিসেবে কিছু বাড়তি ‘সেবা’ দিলেই চলবে। গুমট্রি নামের আরেকটি ওয়েবসাইটের বিজ্ঞাপনেও একই কথা বলা হয়েছে। আরেকটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, হাল এলাকায় ১ মে থেকে একটি রুম ভাড়া হবে। এর ওপরে বড় করে লেখা, ‘দয়া করে যা দেবেন’ তার বিনিময়েই বাসা ভাড়া দেওয়া হবে।

ওই বিজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, ‘অর্থ কোনো ব্যাপার নয়। আমি আসলে অন্তরঙ্গ সঙ্গ পছন্দ করি। তাই এই বাসা ভাড়া নিতে শুধু কিছু শর্ত পূরণ করলেই হবে। সে ব্যাপারে আমরা সরাসরি কথা বলে নিতে পারি। এতে দুই পক্ষেরই লাভবান হওয়ার সুযোগ রয়েছে। অর্থের বিনিময়ে ভাড়া নয়, অন্য কোনো উপায়ে এই ভাড়া মেটানো সম্ভব। বিস্তারিত জানতে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করুন।’ ওই বিজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, ‘বাসা ভাড়া ও যাবতীয় বিল ফ্রি। তবে খাবারের বিল দিতে হবে।’

এ ধরনের আরেকটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘ম্যানচেস্টারে একটি ফ্ল্যাটে এক রুম ভাড়া হবে। একজন মেয়ে দরকার, যিনি আমার সঙ্গে কক্ষটিতে ভাগাভাগি করে থাকবেন।’ এই বিজ্ঞাপনদাতা নিজেকে ২৬ বছর বয়সী তরুণ হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। বিজ্ঞাপনে তিনি আরও বলেছেন, ‘আমি একজন ভালো ছেলে। আমার কক্ষ একজন ভালো তরুণীকে ভাড়া দেওয়া হবে।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিবিসির তদন্তে সম্প্রতি যৌনতার বিনিময়ে বাসা ভাড়ার অনেকগুলো অনলাইন বিজ্ঞাপন পাওয়া গেছে। ক্রেইগসলিস্টের একটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বাসা ভাড়া নেওয়ার জন্য মেয়েদের যৌনতার সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকলেই চলবে। অন্য আরেকটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘মেয়েদের রুম ভাড়া দেওয়া হবে। সপ্তাহে কয়েক দিন কিছু সময়ের জন্য আমার রুমে থাকতে হবে। এ ক্ষেত্রে সব ধরনের বিল ও ভাড়া ফ্রি।’

আরেকটি বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘স্ট্রাটফোর্ডে আমার দুই রুমের একটি ফ্ল্যাট মেয়েদের জন্য ভাড়া হবে। ভাড়া নেওয়ার পর যদি একবার শারীরিক সংসর্গ করেন তাহলে ছয় মাসের জন্য বাসা ভাড়া একদম ফ্রি। এরপর থেকে মাসিক ভাড়া ৫০০ পাউন্ড করে দিতে হবে।’

গৃহহীন মানুষদের নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান সেন্টার পয়েন্ট এ সংক্রান্ত এক জরিপ চালিয়েও এ ধরনের তথ্য পেয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, শহরে ৪০৩ জন গৃহহীন তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ২৫ শতাংশই বাধ্য হয়ে অপরিচিত মানুষের সঙ্গে রুম ভাগাভাগি করে থাকে।

বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে একজন নারী শিক্ষার্থী জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে যৌনতার বিনিময়ে বাসা ভাড়া নেওয়া ছাড়া তাঁর আর অন্য কোনো উপায় নেই।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই তরুণী বলেন, ‘বাসা ভাড়া নেওয়ার পর ওই ব্যক্তি আমাকে তাঁর কক্ষে নিয়ে যান। পানীয় খেতে দেন। এরপর তিনি প্রকৃত অর্থে বাসা ভাড়ার বিনিময়ে যা চান, তা বলতে থাকেন।’

নতুন শুরু হওয়া এসব বিজ্ঞাপনের বিরুদ্ধে কথা বলছেন অধিকার কর্মী থেকে রাজনীতিকেরাও। অ্যান্ড্রিউ ওয়ালিস নামের একজন অধিকার কর্মী বলেন, যদিও অনেকেই এসব বিজ্ঞাপন দেখে স্বেচ্ছায় বাসা ভাড়া নিচ্ছেন। তারপরও অবিলম্বে আইন পরিপন্থী এসব বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া উচিত।’ তিনি বলেন, এই শহরে যাদের অনেকের নিজেদের বাসা নেই, এই সংকটকে কাজে লাগিয়ে অনেকেই বাজে ভাবে সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছে।

লেবার পার্টির এমপি পিটার কিলে বলেন, এই ধরনের শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া উচিত। এ ক্ষেত্রে পার্লামেন্টের হস্তক্ষেপ করা উচিত। তিনি বলেন, যদি ওয়েবসাইটগুলো এ ধরনের বিজ্ঞাপনের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে আমি তা বন্ধে আইন তৈরির প্রস্তাব করব।’

বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ ধরনের বিজ্ঞাপন দেওয়া বাড়িওলা বলেছেন, এতে তো দুই পক্ষেরই লাভবান হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই বাড়ির মালিকেরা বলেন, সবারই তো চোখ খোলা। সবাই যে যার নিজের ইচ্ছেতেই বাসা ভাড়া নেবে।

গুমট্রি ওয়েবসাইটের একজন মুখপাত্র বলেন, ‘গুমট্রি এ ধরনের বিজ্ঞাপন বরদাশত করে না। তারপরও কেউ যদি এ ধরনের বিজ্ঞাপন পোস্ট করে, তাহলে আমরা সরিয়ে দিই। এ ছাড়া ওই বিজ্ঞাপন দাতার আইডি ব্লক করে দেওয়া হয়।’

তবে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ক্রেইগসলিস্ট কোনো মন্তব্য করেনি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts