আজকের জোকস, ২৮ মার্চ ২০১৬

আজকের জোকস

অন্ধ না হলে

ঘরে ঢুকতে গিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে স্বামীর গায়ে ধাক্কা লাগল-

স্ত্রী : উফ অন্ধ নাকি তুমি, দেখতে পাও না ?

স্বামী : অন্ধ না হলে কি আর তোমাকে বিয়ে করি।

বিয়ে নিয়ে ভাবনা যাদের

ঘটক: প্রেমের বিয়ে শুনলে যাঁরা সবচেয়ে বেশি ছি ছি করেন!

পাত্রপাত্রী: পাত্র কাচের হতে পারে, কাঁসার কিংবা পিতলের হতে পারে, কিন্তু পাত্রী যে কিসের, সেটা বোঝা দায়।

আঁকা: শিখাআঁকা: শিখাশ্যালক-শ্যালিকা: গেট আটকে যাঁরা বরের পকেট কাটেন। এর মধ্যে যাঁরা একটু দয়ালু, তাঁরা বরকে এর বিনিময়ে এক গ্লাস ঝাল বা নোনতা শরবত অন্তত খেতে দেন।

মেকআপ আর্টিস্ট: এমবিবিএস পাস করলে যাঁদের অনায়াসেই প্লাস্টিক সার্জন বলা যেত।

আঁকা: শিখাকাজি: আগে কাজিরা কারও মধ্যে ঝামেলা হলে বিচার করতেন, আর এখন তাঁরা বিয়ের নামে দুজনের মধ্যে সারা জীবনের ঝামেলার সূত্রপাত করেন।

আঁকা: শিখাওয়েডিং ফটোগ্রাফার: যাঁদের তোলা ছবি হাতে পাওয়ার পর মানি রিসিপ্টে নিজের নাম দেখে নিশ্চিত হতে হয় এটা নিজের নাকি অন্যের ছবি।

বিয়ের অতিথি: র‌্যাপিং করা বড়সড় কিন্তু হালকা একটা বাক্সকে যাঁরা এমনভাবে বহন করেন, যেন তাঁরা এর ভারে সোজা হয়ে হাঁটতেও পারছেন না।

যখন জায়গা হত না

৪০তম বিবাহবার্ষিকীতে এক মহিলার হঠাৎ মনে পড়ল বিয়ের প্রথম রাতে তার স্বামী তাকে বলেছিল সে যা খুশি করতে পারে কিন্তু শুধু যেন বিছানার নিচে রাখা কাঠের ছোট বাক্সটা না খোলে ।

এতদিন ধরে স্ত্রী কখনো সেটা ছুঁয়েও দেখে নি। কিন্তু ৪০ বছর এই ব্যাপারে সৎ থাকার কারণে তার কাছে মনে হল এখন নিশ্চয় সেটা খোলার অধিকার তার হয়ে আছে। ধীরে ধীরে ছোট বাক্সটি বের করে সে সেটা খুলে দেখল তার ভেতরে স্বামীর জমানো খুচরা টাকায় মোট তিন শ ডলার আর চারটা খালি বিয়ারের বোতল।

রাতে স্বামীর সঙ্গে বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষে বিশেষ ডিনার শেষ করার পর সে তাকে জানাল বাক্স খোলার ব্যাপারটা।

‘সর্বনাশ! তুমি এটা কী করেছ?’ স্বামী কিছুটা উত্তেজিত।

‘আহা এটাতে রেগে যাবার কী আছে?’ কিন্তু চারটা খালি বোতলের অর্থ কী? স্ত্রী কৌতুহলী হয়ে প্রশ্ন করল। ‘ইয়ে.. মানে… আসলে বিয়ের পর আমি যতবার তোমার সাথে প্রতারণ করেছি…. মানে অন্য কোনো মেয়ের সাথে শুয়েছি ততবার আমি বাড়িতে এসে ওই বাক্সে একটা করে বোতল রাখতাম’। স্বামী-ভয়ে ভয়ে জানাল।

চল্লিশ বছরে মাত্র চারবার এমনটি ঘটেছে ভেবে স্ত্রী তার স্বামীকে সান্ত্বনা দিয়ে বলল- ‘থাক এ নিয়ে আর মন খারাপ কোরোনা…’।

রাতের চমৎকার ডিনার শেষে দুজনই ঘুমাতে গেল। হঠাৎ মধ্যরাতের দিকে একটা কথা ভেবে স্ত্রীর ঘুম ছুটে গেল। সে তখনই তার স্বামীকে ঘুম থেকে ডেকে জিজ্ঞেসা করল- আচ্ছা, ওই বাক্সের টাকাগুলো কিসের?

ঘুম ঘুম চোখে স্বামী কোনোমতে পাশ ফিরে জানাল- ও কিছু না যখন বাক্সের ভেতর আর বোতল জায়গা হত না তখন সব বোতল ফেলে এক ডলার করে রাখতাম।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment