পেটে গ্যাস হলে কী করবেন?

পেটে গ্যাস হলে কী করবেন

পেটে গ্যাস হয়নি বা হয় না, এমন লোক খুঁজে পাওয়া মুশকিল। রসিকতা করে বলা হয় তিনটি ‘এফ’ হল গ্যাস এসিডিটির শিকার।

১. ফিমেল ২. ফার্টাইল অর্থাৎ যারা সন্তান ধারণে সক্ষম এবং ৩. ফরটি বা চল্লিশ বছর বয়স। এরা এসিডিটি বা গ্যাস্ট্রাইটিসে বেশি ভুগে থাকেন।

পেটে গ্যাস হওয়ার কারণ-

-যারা দীর্ঘদিন ধরে ব্যথানাশক বা স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ খান

-প্রায়ই আমাশয় হয় এমন ব্যক্তি। এরা অনেক সময় দুশ্চিন্তা বা বিষন্নতায় ভুগে থাকেন।

-গলব্লাডার বা পিত্তথলিতে পাথর হলে।

-কোষ্টকাঠিন্য থাকলে।

-লিভার সমস্যা হলে।

খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন জরুরি

এ ধরনের রোগীরা সঠিক বা নির্দিষ্ট সময়ে আহার বা খাবার খান না। হোটেল-রেস্টুরেন্টের খাবার কিংবা চিনি, মিষ্টি জাতীয় খাবার থেকেও হাইপার এসিডিটি হতে পারে। মহিলারা সাংসারিক কাজে ব্যস্ত থেকে সারা দিন নির্দিষ্ট সময়ে খান না। এ রোগীরা গরম মশলাযুক্ত খাবার বেশি খান পক্ষান্তরে শাকসবজি কম খান। বাইরের সালাদ, বোরহানি, ফল না ধুয়ে খেলেও গ্যাস্ট্রাইটিস হতে পারে। ভাজাপোড়া ও ফাস্টফুড না খাওয়াই ভালো। দই, ঘোল, লেবুর সরবত, পেঁপে, লাউ, চালকুমড়া এ রোগীদের খাওয়া ভালো।

রোগীদের করণীয়- গ্যাস, ঘন ঘন ঢেঁকুর, বুক জ্বালাপোড়া করলে মুখস্থ বা মনগড়া ওষুধ না খেয়ে অতি শিগগির চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ এ রোগের জটিলতা প্রাণসংহারী হতে পারে।

ডা. ফাহিম আহমেদ রুপম
মেডিসেন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ।
চিফকনসালট্যান্ট, সিটি স্কিন সেন্টার।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts