আইএসকে অনৈসলামিক বললেন জাকির নায়েক

zakir_nayek

মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটকে (আইএস) অনৈসলামিক সংগঠ বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামবিষয়ক ভারতের বিশিষ্ট চিন্তাবিদ জাকির নায়েক।

গুলশানের জঙ্গিদের কয়েকজন জাকির নায়েকের বক্তব্য দ্বারা অনুপ্রাণিত- এমন খবর প্রকাশিত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এ মন্তব্য করেন তিনি। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

জাকির নায়েকের ভাষ্যে, ‘ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড সিরিয়া (আইএস) নামটিই অনৈসলামিক।’

তিনি বলেন, ‘ইসলামিক স্টেট (আইএস) নামটি ব্যবহার করে আমরা আসলে ইসলামের নিন্দা করছি।’

মুম্বাইভিত্তিক একটি ইসলামিক গবেষণা কেন্দ্রের এই পরিচালক এ জঙ্গি সংগঠনটিকে ‘এন্টি ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড সিরিয়া’ নামে অভিহিত করেন।

আইএস নামটি ইসলামের শত্রুদের দেয়া বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জাকির নায়েক এই মুহূর্তে সৌদি আরবের মক্কায় অবস্থান করছেন। সেখানেই তিনি শুনেছেন গুলশানের হত্যাকারীরা তার অনুসারী এমন একটি বক্তব্য।

সেই বক্তব্যটিকে মিথ্যা হিসেবে উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেন, ‘আমার ফেসবুক ফলোয়ারের বড় অংশই বাংলাদেশী। এ ছাড়া বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি অঞ্চলের মানুষই বাংলায় প্রচারিত পিসটিভিতে আমাকে দেখেন। ৯০ শতাংশ বাংলাদেশী আমাকে চেনেন।’

জাকির নায়েক বলেন, প্রবীণ রাজনীতিক থেকে সাধারণ মানুষ, ছাত্র, শিক্ষকরা রয়েছেন সেই তালিকায়। আর এই বিপুল মানুষের ৫০ শতাংশ আমার গুণমুগ্ধ। এই অবস্থায় জঙ্গিরা যদি আমায় চেনে তাহলে কি আমার খুব বেশি অবাক হওয়ার কথা? না।’

তবে যত যা ই হোক, তিনি জঙ্গি আক্রমণ কোনোভাবেই সমর্থন করেন না বলে সাফ জানিয়েছেন।

জাকির নায়েক বলেন, ‘হত্যাকারীরা আমার বক্তব্যের সঙ্গে পরিচিত হতেই পারে। কিন্তু তার মানে এই নয় আমি তাদের অনুপ্রাণিত করেছি। আমি সাধারণত ধর্মীয় বই অনুসারে বক্তব্য দেই। আমার বক্তব্য শুনে তারা যদি সঠিক ইসলামকে বুঝতে না পারে সেটা তাদের দুর্ভাগ্য।’

ভারত ও দুবাইভিত্তকি পিস টিভিতে প্রতিদিনের টেলিভিশন অনুষ্ঠানে ইসলামের নানা বিষয় নিয়ে বক্তব্য দেন নায়েক।

মুসলিম বিশ্বে তিনি একজন জনপ্রিয় বক্তা। ফেসবুকে তার এক কোটি ৪০ লাখ ফলোয়ার রয়েছে। বিভিন্ন ভাষায় বিশ্বের ২০ কোটি মানুষ টিভিতে তার অনুষ্ঠান দেখে থাকে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts