ইন্দোনেশিয়ায় যৌনপল্লী উৎখাত

ইন্দোনেশিয়ায় প্রাচীন যৌনপল্লী উৎখাত

ইন্দোনেশিয়ায় প্রাচীনতম একটি যৌনপল্লী বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

বিশ্বের অন্যতম এই মুসলিম জনবহুল দেশ থেকে ‘দেহ-ব্যবসা’ পুরোপুরি নির্মূল করার উদ্দেশ্যে কর্তৃপক্ষ এই এলাকার যৌনকর্মীদের বাড়িঘরগুলো ধ্বংস করে দিয়েছে।

রাজধানী জাকার্তায় এই কালিজদো এলাকায় তিন হাজারের মতো মানুষ বাস করতো।

বিবিসির সংবাদদাতা বলছেন, এখান থেকে স্থানীয় বাসিন্দাদের গত এক সপ্তাহ ধরেই উৎখাত করা হচ্ছিলো। কর্তৃপক্ষের নির্দেশের পর যৌনকর্মীরা এখান থেকে তাদের জিনিসপত্র নিয়ে ধীরে ধীরে সরে যাচ্ছিলো।

এই এলাকায় বহু পরিবার বসবাস করে আসছিলো কয়েক প্রজন্ম ধরে। যেসব পানশালা, ক্যাসিনো, দোকানপাট, নাইটক্লাব ছিলো সেগুলোকেও ভেঙে দেয়া হয়েছে। অনেকেই ধারণা করেছিলো যে স্থানীয় লোকজনের দিক থেকে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ হতে পারে। সংঘর্ষ হতে পারে পুলিশের সাথেও।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত লোকজন এখান থেকে নিরবেই চলে গেছে। তারা বলছেন, সরকারের এই সিদ্ধান্ত মেনে নেয়া ছাড়া তাদের আর কোনো উপায় ছিলো না।

তারা বলছেন, এই সিদ্ধান্ত প্রতিরোধের কোনো ক্ষমতা তাদের নেই। তারা শুধু চাইছেন সরকারও যেনো তাদের দিকে একটু খেয়াল রাখেন।

এই উৎখাত অভিযানে বহু পুলিশ অংশ নেয়। এসময় অনেক বাড়িঘর থেকে ছুরি ও বন্দুকের মতো বহু অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে।
পুলিশ বলছে, এই এলাকায় সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রও সক্রিয় ছিলো।

সরকার বলছে, নদীর তীরবর্তী এই এলাকাটিতে পুলিশ এখন একটি কলাবাগান গড়ে তুলবে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, দেশটিতে এরকম যৌনপল্লী বা রেড-লাইট এলাকার সংখ্যা একশোটির মতো।ইন্দোনেশিয়ার সরকার চাইছে, সারা দেশের যৌন-পল্লী বন্ধ করে দিতে।

দেহ ব্যবসা ইন্দোনেশিয়ায় অবৈধ হলেও বড়ো বড়ো শহরগুলোতে অবাধেই এই যৌন ব্যবসা চলে আসছে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment