কনডম রেখে জুতো ফেরত দিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প
Share Button

ব্রিটেনের বিখ্যাত জুতো তৈরি প্রতিষ্ঠান গুডউইন স্মিথ ব্রান্ড ‘ব্রোগস’এর এক জোড়া জুতো প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পায়ের মাপ অনুযায়ী পাঠানো হয়েছিল। সঙ্গে একটি কনডম ও আরেকটি চিঠি পাঠালে ট্রাম্প কনডমটি রেখে জুতো জোড়া ফেরত পাঠিয়েছেন। তবে ট্রাম্প এজন্যে ধন্যবাদ দিতে ভোলেননি। এমনকি কনডমটির জন্যে তারিফ করেছেন। বিনামূল্যে ব্রিটেনের ওই দোকানদার জুতো জোড়া পাঠান ট্রাম্পের জন্যে। চিঠিতে তার বিস্তারিত বিবরণ সহ জানানো হয় গুগল থেকে ট্রাম্পের পায়ের সঠিক মাপ জেনে বারো সাইজের জুতো জোড়া পাঠানো হয়েছে । ট্রাম্পের জন্যে তা ঠিক মাপেরই ছিল। তবে তিনি তা রাখেননি।

ট্রাম্পকে পাঠানো জুতোর মূল্য ১’শ ব্রিটিশ পাউন্ড। অবশ্য ট্রাম্পই প্রথম নয়, ল্যাঙ্কাশায়ারের জুতো তৈরি প্রতিষ্ঠান গুডউইন স্মিথ এর আগেও বাণিজ্যিক কৌশল হিসেবে বিশ্বনেতাদের কাছে জুতো উপহার পাঠিয়েছে।

ট্রাম্পের কাছে দেওয়া চিঠিতে প্রেসিডেন্টকে সদম্ভে চলার জন্যে প্রশংসা করা হলে তা ফিরতি চিঠিতে পছন্দ করেছেন বলে জানান রিপাবলিকান এই নেতা। চিঠিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। গত নভেম্বর ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবার একদিন পর এ ধরনের উপহার পাঠানো হয়। চিঠিতে তাকে অভিনন্দন জানানো হয়।

চিঠিতে ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে আরো বলা হয়, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় গুডউইন স্মিথ আপনার তারিফ করছে। আপনি সত্যিই এক ব্যক্তিত্ব যিনি সদম্ভে চলাফেরা করেন। নিদর্শন হিসেবে আপনার জন্যে এক জোড়া ব্রিটিশ অক্সফোর্ড ব্রোগস ব্রান্ডের দি বেয়ারলি ব্লাক জুতো পাঠানো হল। এধরনে জুতো সবাইকে প্রথম সপ্তাহে তার কাজে সাহায্য করবে। আমরা জানি এই দায়িত্ব অনেক কঠিন। আপনার জন্যে ১২ মাপের জুতো গুগল থেকে জেনে পাঠানো হল।

কিন্তু ট্রাম্প কনডমটি রেখে জুতো জোড়া ফেরত পাঠিয়েছেন এমন দাবি করছে প্রতিষ্ঠানটি। ট্রাম্প চিঠির উত্তরে লিখেছেন, আপনাদের পাঠানো উপহার আমার ওভাল অফিসে এসে পৌঁছেছে। আমাকে নিয়ে ও আমার চলাফেরার ভঙ্গি নিয়ে চিন্তা করার জন্যে ধন্যবাদ। এর মূল্য আমার কাছে অনেক। সাহসের সঙ্গে গুডউইন স্মিথের এধরনের পণ্য পাঠানোর বিষয়টিকে ট্রাম্প বিজয়ী হবার মানসিকতা হিসেবে বর্ণনা করেন এবং বলেন জুতোর সঙ্গে কনডম দেওয়া অনন্য এক প্রাপ্তি।

এরপর ট্রাম্প তার পায়ের মাপ ১২ বলেই জানান এবং বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন বেয়ারলি ব্লাক জুতো তার শাসনামলের প্রথম ভাগে উপযুক্ত বলেই বিবেচিত হবে। যেহেতু আপনারা আমাকে অর্ধেক ব্রিটিশ বলে মনে করেন তাই ব্রিটেনের পণ্য ব্যবহার করতে পারলে গর্ববোধ করব। কিন্তু দুর্ভাগ্য যে হোয়াইট হাউজের নীতি অনুয়ায়ী কোনো ধরনের অযাচিত পণ্য গ্রহণ করতে আমি অক্ষম। এজন্যে তিনি গভীরভাবে ক্ষমাপ্রার্থী বলেও জানান।

ভবিষ্যতে এধরনের কালো জুতো পড়তে তিনি পছন্দ করবেন বলেও জানান ট্রাম্প। এধরনের চিঠি ট্রাম্প আদৌ পেয়েছেন কি না তা নিয়ে সন্দেহ থাকলেও গুডউইন স্মিথের জনসংযোগ কর্মকর্তা সিমন স্মিথ দাবি করেন চিঠিটি আসল এবং তারা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনকেও জুতো পাঠিয়েছেন। তবে ট্রাম্প চিঠির উত্তর দিয়েছেন বরে আমরা বিস্মিত হয়েছি। আমরা বিশ্বাসই করিনি। তিনি আমাদের চিঠি পড়েছেন এবং উত্তর দিয়েছেন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts