কাশ্মীরে কারফিউ ভেঙে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ : নিহত ৪

কাশ্মীরে কারফিউ ভেঙে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ : নিহত ৪
Share Button

জম্মু-কাশ্মীরে চলমান আন্দোলনে বুধবার পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন আরেক বিক্ষোভকারী। সবমিলে এ ঘটনায় দু’দিনে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারালেন ৪ জন। আগের দিন (মঙ্গলবার) সেনাবাহিনীর গুলিতে এক ক্রিকেটারসহ তিন বিক্ষোভকারী নিহত হন। পরে গণবিক্ষোভ সামলাতে কারফিউ জারি করা হয়।

বুধবার ক্রিকেটার নাঈম ভাটের দাফন শেষে উত্তেজিত জনতা কারফিউ ভেঙে বিক্ষোভ করলে পুলিশ গুলি চালায়। সেনাসদস্যের বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগকে ঘিরে মঙ্গলবার থেকে এ বিক্ষোভের সূত্রপাত। এদিকে কাশ্মীরি ওই নারীর ওপর সেনাসদস্যের যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এই বিক্ষোভ শুরু হলেও, সেনাবাহিনীর সরবরাহকৃত এক ভিডিওতে ওই নারীকে অভিযোগ অস্বীকার করতে দেখা গেছে।

সেনাবাহিনীর ছড়িয়ে দেয়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, ওই নারী বলছেন, স্থানীয় এক ছেলে তার সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছেন। এ ঘটনায় দায়িত্বহীনতার অভিযোগে একজন পুলিশ সদস্যকে পুরো বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে সেনা কর্তৃপক্ষ।

ভারতের গণমাধ্যমের খবর, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা ৪৫ মিনিটের দিকে, শহরের বাজারসংলগ্ন সেনা বাংকারের নিকটবর্তী এক শৌচাগারে ওই কাশ্মীরি মেয়েকে যৌন নির্যাতনের চেষ্টা করেন এক ভারতীয় সেনাসদস্য। খবরটি ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় জনগণ বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে গুলি চালায় সেনাবাহিনী। এতে ওই তিনজন নিহত হন।

স্থানীয় এক দোকানদার বলেন, ‘ওই সেনাসদস্য যৌন নিপীড়নের চেষ্টা করলে মেয়েটি একটি সতর্কতামূলক অ্যালার্ম বাজিয়ে দেন। এতে স্থানীয় লোকজন এবং শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই সেনাসদস্যকে ধরার চেষ্টা করে। তবে ওই সেনাসদস্য বাংকারে আশ্রয় নেন।’ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি বলেছেন, এ ঘটনায় জড়িত জওয়ানদের কঠোর শাস্তি দেয়া হবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts