জিহাদি কর্মকাণ্ডের জন্য লাদেন রেখে গেছেন ২ কোটি ৯০ লাখ ডলার

জিহাদি কর্মকাণ্ডে ব্যবহারের জন্য আল কায়েদার সাবেক প্রধান ওসামা বিন লাদেন রেখে গেছেন ২ কোটি ৯০ লাখ ডলার। এ সম্পদ গচ্ছিত আছে সুদানে। তবে তার কোন উত্তরাধিকারের হাতে এ অর্থ পৌঁছেছে কিনা তা জানা যায় নি।

এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২রা মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে ওসামা বিন লাদেনের গোপন আস্তানায় হানা দেয় যুক্তরাষ্ট্রের নেভি সিলের সদস্যরা। সেখানে এক রাতের অভিযানে তারা হত্যা করে বিন লাদেনকে।

তার মৃত্যুর পর কেটে গেছে কয়েক বছর। এখন নতুন করে পাওয়া গেছে বিন লাদেনের নিজের হাতে লেখা বেশ কিছু দলিল। তার মধ্যে রয়েছে কয়েকটি চিঠি।

এতেই জিহাদি কর্মকাণ্ডে ব্যবহারের জন্য গচ্ছিত রাখা ওই অর্থের কথা বলা হয়েছে। আমেরিকা থেকে বিন লাদেন সংক্রান্ত যত তথ্য প্রকাশিত হয়েছে এই দলিল তার অন্যতম। বিন লাদেন তার পরিবারের কাছে তার মৃত্যুর পর এই বিপুল অর্থ ইসলামী জিহাদের জন্য যেন ব্যায় করা হয় এই মর্মে তাদেরকে আল্লাহর নামে কসম দিয়ে গেছেন।

তার এই অর্থ স¤পদ সুদানে আছে। তবে স¤পত্তি হিসাবে না কি টাকার অঙ্কে তা জমা রয়েছে তা জানা যায় নি। বিন লাদেন ১৯৯০ সাল থেকে পরবর্তী পাঁচ বছর সুদান সরকারের অনুমতিতে সুদানেই অবস্থান করছিলেন।

গত মঙ্গলবার লাদেনের আরো যে সব তথ্য প্রচারিত হয়েছে তা থেকে জানা যায় যে, ওসামা বিন লাদেন নিজে মার্কিনিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলে যে ভয়াবহতা নেমে আসবে তা থেকে মানবজাতিকে রক্ষা করতে।

তিনি সন্দেহ করছিলেন যে, তাকে অনুসরণ করতে তার স্ত্রীর কোন এক দাঁতে ডাক্তাররা একটি (ট্রাকিং ডিভাইস) পরিয়েছেন। ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে সন্ত্রাসী হামলার ১০ম বৎসর পুর্তি উপলক্ষ্যে মুসলমানদের সন্দেহ করার প্রতিবাদে আমেরিকান মিডিয়াতে একটি বিশাল প্রচারণা চালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন বিন লাদেন।

বিন লাদেন আফগানিস্তানে আমেরিকান সেনাদের তৎপরতা এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ উল্লেখপূর্বক যুক্তরাষ্ট্রের আক্রমণের বিষয়ে সচেতন ছিলেন।

তিনি আরো লিখেছেন যে, মার্কিনিরা ভাবছে আল কায়েদার বিরুদ্ধে তাদের যুদ্ধ খুব সহজ হবে এবং তারা খুব দ্রুত তাদের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে। তিনি তার জিহাদি সঙ্গীদের উদ্দেশ্যে আরো ধৈর্য্য ধরার জন্য বলেন, যা তাদের সফল হতে সাহায্য করবে ।

২০১১ সালে মার্কিন হামলায় ওসামা বিন লাদেনের মৃত্যু পর বর্তমানে আল কায়েদার নেতৃত্ব দিচ্ছেন লাদেনেরই সেকেন্ড ইন কমান্ড আয়মান-আল জাওয়াহেরি ।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

Related posts

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.