থাই রাজকুমারীর ৪০ হাজার ডলারের টয়লেটও পছন্দ হয়নি!

থাই রাজকুমারী
Share Button

কম্বোডিয়ায় থাই রাজকুমারী মহা চক্রী সিরিনধরনের জন্য নির্মিত বিলাসবহুল টয়লেট অব্যবহৃতই থেকে গেল।

কম্বোডিয়া সরকার সোমবার থাই রাজকুমারীর দুই ঘণ্টার সফর উপলক্ষে এ টয়লেট নির্মাণ করে। এতে খরচ হয় ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।

কম্বোডিয়ার মত একটি গরিব দেশে যেখানে গ্রামের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের নিজেদের ব্যবহারের টয়লেট নেই, সেখানে থাই রাজকুমারীর জন্য এ ধরনের বিলাবহুল টয়লেট নির্মাণ করা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

কম্বোডিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাতানাক্কিরি প্রদেশের লেক ইয়াক লোম হ্রদের তীরে ওই বিলাসবহুল টয়লেট নির্মাণ করা হয়।

কম্যুনিটি নেতা ভেন চার্ক মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা এএফপি’কে বলেন, কম্বোডিয়ায় রাজকুমারীর দুই ঘণ্টার সফর শেষ হয়েছে। তবে তিনি তার জন্য নির্মিত টয়লেটটি ব্যবহার করেননি।

তিনি বলেন, টয়লেটটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে এবং এটি এখন থেকে পর্যটকদের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত নিরাপত্তা বাহিনীর ফাঁড়ি হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

ভেন চার্ক বলেন, রাজকুমারী বাথরুমে যাননি। তিনি শুধু বাইরে থেকে এটি দেখেন এবং কয়েকটি ছবি তুলে রাখেন।

তিনি বলেন, আট বর্গমিটার চওড়া বাথরুমের কমোডটি বিদেশ থেকে কেনা। এটি সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। এটি নির্মাণ করতে দুই সপ্তাহ লেগেছে। ব্যয় হয়েছে ৪০ হাজার মার্কিন ডলার।

ভেন চার্ক বলেন, ‘আমি এ ধরনের বাথরুম আর কখনো দেখেনি।’

প্রাদেশিক গভর্নর নেম স্যামও নিশ্চিত করেন, বাথরুমটি অব্যবহৃতই রয়ে গেছে।

তিনি বলেন, এটা খুবই আধুনিক ও সুন্দর। এটা শুধুমাত্র রাজকুমারীর জন্য নির্মিত। তাইএটা রাখা যাবে না।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, ক্রাউন প্রপার্টি ব্যুরোর মালিকানাধীন থাই নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সিয়াম সিমেন্ট গ্রুপ এই বাথরুমটি নির্মাণ করে। থাই পক্ষ এর নির্মাণ ব্যয় বহন করেছে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment