নারী পুলিশ সদস্যদের হিজাব পড়ার আদেশ

নারী পুলিশদের হিজাব পড়ার আদেশ
Share Button

পুলিশদের পোশাক মূলত সিলেক্ট করা থাকে। এক্ষেত্রে নারী পুরুষ উভয়ের পোশাকে ভিন্নতা থাকে না। তবে এবার প্রথমবারের মত পুলিশের পোশাকের সাথে হিজাব পড়ার অনুমতি দিল রাষ্ট্র।

স্কটল্যান্ডের নারী পুলিশ এখন পোশাকের সাথে হিজাব পরিধান করতে পারবে। মুসলমান ধর্মের নারীরা যেন এই কাজে আরও এগিয়ে আসে তাই এই পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। আগে সিনিয়রদের মঞ্জুরি পেলে নারীরা হিজাব পড়তে পারতেন। কিন্তু এখন রাষ্ট্র তাদের এই সুবিধা সরাসরি দিয়ে দিয়েছেন।

স্কটল্যান্ডের পুলিশ অপশনাল হিসেবে এই হিজাব রেখেছেন। স্কটল্যান্ডের পুলিশ বাহিনী চায়, সেখানে আরো এশীয় এবং কৃষ্ণাঙ্গ মানুষ যুক্ত হোক। অবশ্য এ লক্ষ্যে লন্ডন শহরের পুলিশ ১০ বছর আগেই, ২০০১ সাল থেকে আইন করেছিল যে, নারীদের ইচ্ছা থাকলে তারা হিজাব পড়তে পারবেন।

স্কটল্যান্ডের পুলিশের হিসাব অনুযায়ী, কৃষ্ণাঙ্গ, এশীয় ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ১২৭ প্রার্থী ২০১৫-১৬ বর্ষে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। মোট আগ্রহী প্রার্থীর আড়াই শতাংশ এটি। স্কটল্যান্ডের আইন অনুযায়ী পুলিশ বাহিনী ৪ শতাংশ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ অন্তর্ভুক্ত করতে ৬৫০ জন সদস্য প্রয়োজন।

স্কটল্যান্ড পুলিশের চিফ ইন্সপেক্টর অ্যানা বেল বলেন, চলতি বছর দেশটির বাহিনীর নারী পুলিশ যোগ দেওয়ার ১০১তম বার্ষিকী। বাহিনীতে আরো নারীর অংশগ্রহণ চাওয়া হচ্ছে। আর নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর একটি উপায় হলো হিজাব পরার অধিকার দেওয়া।

স্কটল্যান্ড পুলিশ বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, হিজাব পরিধানের অনুমতি দেওয়া হলে তা উর্দিরই অংশ হবে। আর এটি বাস্তবায়িত হলে এশীয় ও কৃষ্ণাঙ্গ প্রার্থীদের বাধা দূর হবে। তবে পুলিশ বাহিনী আরো জানিয়েছে, খুব দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হচ্ছে না।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts