নেশার খরচ মেটাতে মেয়েকে মাদক বিক্রেতার সয্যাসঙ্গী বানালো মা

নেশার খরচ মেটাতে মেয়েকে ড্রাগ ডিলারের সয্যাসঙ্গী বানালো মা

অপরাধের বর্ণনা শুনে হতবাক হয়ে গিয়েছিলেন বিচারকও। তাঁর এতদিনের বিচারপতির জীবনে এমন ভয়াবহ ঘটনা কখনও শোনেননি বলে জানান আমেরিকার ওহিয়ো প্রদেশের নিম্ন আদালতের বিচারপতি লেসলি ঘিজ।

মাদক যে সারা বিশ্বেই কী প্রচণ্ড সামাজিক সংকট তৈরি করেছে তা আরও একবার প্রমাণ করল ৩২ বছরের কোরকোরান। মাদক নেশা মেটাতে নিজের ১১ বছরের মেয়েকে ড্রাগ ডিলারের হাতে সঁপে দিতেও দ্বিধা করেনি ওহিয়োর এই বাসিন্দা।

কোরকোরানের সাহায্যে তার ১১ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করত ড্রাগ ব্যবসায়ী। পরিবর্তে কোরকোরানের হাতে তুলে দিত হেরোইন। ধর্ষণের ছবি ভিডিও রেকর্ড করেও রেখে দিত ওই ডিলার। ২০১৪-র ফেব্রুয়ারি থেকে জুনের মধ্যে চারবার কিশোরী মেয়েটিকে ধর্ষণ করে ওই ডিলার। মেয়ের সম্ভ্রমের বিনিময়ে হাতে পাওয়া হেরোইন মেয়েকেও খাওয়ায় কোরকোরান। প্রতিবারই তা বমি করে দেয় ওই স্কুলছাত্রী।

২০১৪-র জুনে এই ঘটনা জানাজানি হয়। মেয়েটির বাবা ও মা-র মধ্যে আগেই ডিভোর্স হয়ে গিয়েছে। একদিন সুযোগ বুঝে বাবার কাছে পালিয়ে গিয়ে তাঁকে সবকথা জানায় কিশোরী। তারপরই কোরকোরান ও তার ড্রাগ ডিলারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মেয়েটির কাউন্সেলিং চলছে। তবে ভয়ানক ট্রমা এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি সে। মাঝেমধ্যেই আত্মহত্যার কথাও ভাবে। আদৌ কোনওদিন সে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে কিনা, তা নিয়ে সংশয়ে তার চিকিত্‍সকরাও।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts