পশ্চিমবঙ্গে বামদের পতন অব্যাহত, এ বার তৃতীয় স্থানে

mamata banerjee vot

বিপুল ভাবে ক্ষমতায় ফিরছেন মমতা। হ্যাঁ-দিদি বনাম না-দিদির লড়াইতে ভারী সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে নবান্নের দখল ধরে রাখলেন দিদি। বিধানসভা নির্বাচনের রায় বুঝিয়ে দিল, বাংলা এখনও দিদির পাশেই।

তৃণমূল একাই বিপুল দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার কাছাকাছি পৌঁছে যাচ্ছে, বলছে ভোট গণনার গতিপ্রকৃতি। দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসছে কংগ্রেস। বামেরা আরও কোণঠাসা রাজ্যে। গণনার ইঙ্গিত বলছে বামেরা আসনসংখ্যার বিচারে তৃতীয় স্থানে নেমে যেতে চলেছে। অন্য দিকে শতাংশের বিচারে ভোট কমলেও বেশ কিছু আসন বাড়িয়ে নিচ্ছে বিজেপি।

প্রথমেই পোস্টাল ব্যালট গণনা শুরু হয় বৃহস্পতিবার সকালে। তাতেও বিরোধীদের থেকে বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়েছিল তৃণমূল। ইভিএম খুলতেই সেই ব্যবধান আরও বাড়ে। তৃণমূল দ্রুত ১০০ ছাড়িয়ে যায় এবং এগোতে থাকে নিরঙ্কুশ গরিষ্ঠতার দিকে। প্রথম রাউন্ডের গণনার শেষে যদিও চূড়ান্ত ফল বলা সম্ভব নয়। কিন্তু তৃণমূল যে ভাবে জোটের দ্বিগুণেরও বেশি আসনে এগিয়ে গিয়েছে, তাতে রাজ্যজুড়ে তৃণমূলের পক্ষে বিপুল সমর্থনের আঁচ পাওয়া যাচ্ছে বলেই রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন।
জোট প্রার্থীরা যে সব আসনগুলিতে এগিয়ে রয়েছেন, সেগুলি মূলত উত্তরবঙ্গে। দক্ষিণবঙ্গে কিছু নির্দিষ্ট পকেট ছাড়া জোটের সাফল্য এখনও পর্যন্ত তেমন চোখে পড়েনি। তৃণমূলের ভোটে ভাগ বসাতে পারেননি বিরোধীরা।

সূর্যকান্ত মিশ্র নারায়ণগড়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে রয়েছেন। তিনি কখনও এগিয়ে যাচ্ছেন, কখনও পিছিয়ে পড়ছেন। ভবানীপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভবানীপুরে এগিয়ে থাকলেও ব্যবধান বেশি নয়। সবং-এ মানস ভুঁইয়া এগিয়ে সকাল থেকেই। শিলিগুড়িতে এগিয়ে অশোক ভট্টাচার্য। তবে পাশের কেন্দ্র ডাবগ্রাম-ফুলবাড়িতে তৃণমূলের গৌতম দেব পিছিয়ে পড়েছেন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts