ভারতে কিশোরসহ ২ মুসলিম গরু ব্যবসায়ীকে হত্যা

crime-logo

মাত্র কয়েক মাস আগেই গরুর মাংস খাওয়া ও মজুদ করার গুজবে এক মুসলিম বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বিশ্বজুড়ে সমালোচনার শীর্ষে উঠে এসেছিল হিন্দু অধ্যুষিত ভারত।

রাজধানী দিল্লির অদূরে দাদ্রিতে সে ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ঝাড়খন্ডে দুই মুসলিম গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে ও রশিতে ঝুলিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে দুর্বৃৃত্তরা। নিহতদের মধ্যে ১৫ বছরের এক কিশোরও রয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর বলা হয়েছে- শুক্রবার মোহাম্মদ মজলুম (৩৫) ও তার আত্মীয় আজাদ খান ওরফে ইব্রাহিম (১৫) নামের দুই গরু ব্যবসায়ী আটটি গরু নিয়ে বাজারে যাচ্ছিলেন।

পথিমধ্যে তাদের পিটিয়ে হত্যা করা হয়। প্রাদেশিক রাজধানী রাঁচি থেকে মাত্র একশ’ কিলোমিটার দূরে লাটেহার জেলার বালুমঠ বনে এ ঘটনা ঘটে।

গরুর সুরক্ষার দাবিদার লোকজনই এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহতদের মৃতদেহ হাত পেছনের দিকে বাঁধা ছিল। বাঁধা হাত গাছের ডালের সঙ্গে বেঁধে মৃতদেহ দুটি ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল। তাদের মুখে কাপড় গুঁজে রাখা ছিল।

লাটেহারের পুলিশ সুপার অনুপ বার্থারি বলেন, ‘যেভাবে তাদের মৃতদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল, তাতে এটা স্পষ্ট যে, তীব্র ঘৃণা থেকেই তাদের আক্রমণ করেছিল হত্যাকারীরা।’

তবে হত্যাকাণ্ড ব্যক্তিগত জেরে, নাকি মুসলিমবিদ্বেষ থেকে, সে বিষয়ে নিশ্চিত নয় প্রশাসন।

পুলিশ জানিয়েছে, গরুগুলোকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। গরুগুলো বনে ঢুকে পড়েছে, নাকি দুর্বৃৃত্তরা গরুগুলোকে নিয়ে গেছে- তাও জানা যায়নি।

এদিকে, এই হত্যাকাণ্ডে ঝাব্বর গ্রামের বিক্ষুব্ধ বাসিন্দারা মৃতদেহ দুটি উদ্ধারের চেষ্টার সময় সহিংস হয়ে ওঠেন।

রাজনৈতিক ও আইনশৃংখলা প্রসঙ্গে ঝাড়খন্ডে বিজেপি নেতৃত্বাধীন প্রাদেশিক সরকারের জন্য বর্তমান পরিস্থিতি গুরুগম্ভীর হয়ে উঠেছে।

প্রসঙ্গত, ভারতের বর্তমান সরকারকে দায়ী করে প্রতিবাদ হিসেবে কয়েক মাসে কয়েকশ’ শিক্ষাবিদ ও শিল্পী জাতীয় পুরস্কার ফিরিয়ে দেয়ার পরই নতুন করে এ ঘটনা ঘটল।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment