ভারতে প্রথম দফার ভোটে কে এগিয়ে?

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে একি বললেন মোদি!

প্রথম দফার লোকসভা সভা গণতন্ত্রকে হত্যার অভিযোগে কমিশনের দ্বারস্থ বিজেপি। বৃহস্পতিবার কলকাতা নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে গিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন জয়প্রকাশ মজুমদার-সহ বিজেপি প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, কোচবিহারে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কাজে বাধা দিয়েছেন তৃণমূল কর্মীরা। এমনকী, ভোট দিতে দেওয়া হয়নি মহিলাদের। দিল্লিতে জাতীয় নির্বাচন কমিশনারের কাছেও অভিযোগ জানানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এই প্রসঙ্গে কমিশনের তরফে সাংবাদিক বৈঠকে জানানো হয়, সব অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে আশ্বাস দিয়েছে কমিশন।

লোকসভা ভোটে দিনভর অশান্তি চলে কোচবিহারে। দিনহাটায় ভোটারদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে খোদ বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিককে ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল কর্মীরা। কোচবিহারের দিনহাটায় ভেটাগুড়িতে বাড়ি বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিকের। বৃহস্পতিবার সকাল এলাকার একটি বুথে গিয়ে ভোট দিয়ে আসেন তিনি। এরপর বেরিয়ে পড়েন দিনহাটা ও সিতাই বিধানসভার বিভিন্ন বুথ পরিদর্শনে। নিশীথ প্রামাণিক যখন দিনহাটার গড়পুরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথে পৌঁছান, তখন তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখতে শুরু করেন স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ, বিভিন্ন বুথে গিয়ে ভোটারদের হুমকি দিচ্ছেন কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। শেষপর্যন্ত পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। বিকেলে কোচবিহারের জেলাশাসকের কাছে ১৬৬টি বুথের তালিকা জমা দিয়ে পুনর্নিবাচনের দাবি জানিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী।

এদিকে মাথাভাঙায় আবার হেনস্তার মুখে পড়লেন কোচবিহার কেন্দ্রে ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী গোবিন্দ রায়। তাঁর অভিযোগ, পচাগড় পঞ্চায়েতের ২৩৮ নম্বর বুথে ছাপ্পা ভোট দিচ্ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা। বাধা দেওয়ায় প্রার্থী ও তাঁর দলের সমর্থককে উপর চড়াও হন তাঁরা। ফরওয়ার্ড ব্লক প্রার্থী গোবিন্দ রায়কে রীতিমতো হেনস্তা করা হয়। ভাঙচুর করা হয় তাঁর গাড়িতেও। ঘটনার সময়ে বামপ্রার্থী গোবিন্দ রায়কে পুলিশ সাহায্য করেনি বলে অভিযোগ। দলের কর্মীরাই তাঁকে এলাকা থেকে বের করে নিয়ে যান।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts