মিশরের সাবেক স্বৈরশাসক হোসনি মোবারক কারামুক্ত

হোসনি মোবারক
Share Button
মিশরের সাবেক স্বৈরশাসক হোসনি মোবারককে ছয় বছর পর কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। শুক্রবার তাকে মুক্তি দেয়া হয় বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী ফরিদ আল দীব। খবর এএফপি ও রয়টার্সের।

আইনজীবী ফরিদ আল দীব জানান, শুক্রবার মাদি সামরিক হাসপাতাল থেকে মুক্তি পান হোসনি মোবারক। সেখান থেকে নিজ শহর হেলিওপলিসে যাচ্ছেন তিনি।

এর আগে গত ২ মার্চ মিশরের সর্বোচ্চ আপিল আদালত  কয়েকশ’ বিক্ষোভকারীকে হত্যার অভিযোগ থেকে ৮৮ বছর বয়সী সাবেক এ স্বৈরশাসককে বেকসুর খালাস দিয়েছিল।

২০১১ সালের জানুয়ারিতে শুরু হওয়া ১৮ দিনের গণবিপ্লবে ওই বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি ক্ষমতাচ্যুত হন মোবারক। বিপ্লবের দিনগুলোতে তার নির্দেশে ২৩৯ বিক্ষোভকারী নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হন।

বিক্ষোভকারী হত্যার নির্দেশদাতা হিসেবে ২০১২ সালে নিম্ন আদালত হোসনি মোবারককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছিল। কিন্তু ওই রায়ের বিরুদ্ধে দুইবার উচ্চ আদালতে আপিল করেন মোবারক।

বিপ্লবের দিনগুলোতে নিহতদের স্বজনরা আপিল আদালতের রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তারা ওই গণহত্যার জন্য মোবারকের পাশাপাশি বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আস-সিসিরও বিচার দাবি করেছেন।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট সিসি ওই সময় (হোসনি মোবারক শাসনামলে) সেনা গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান ছিলেন।

পরবর্তীতে দেশটির প্রথম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মুরসি জেনারেল সিসিকে সেনাপ্রধান পদে নিয়োগ দেন এবং ২০১৩ সালের আগস্টে সিসির হাতেই ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি।

সরকারি তহবিল তসরুফের অভিযোগে এরই মধ্যে তিন বছরের কারাদণ্ড ভোগ করেছেন হোসনি মোবারক।

সাবেক এই একনায়কের বিরুদ্ধে বিপ্লব-পরবর্তী দিনগুলোতে আরও বহু অভিযোগ আনা হয়েছিল। সেসব অভিযোগের প্রায় সবগুলোতে তিনি নিজের শাসনামলে স্থাপিত বিচার বিভাগের কাছ থেকে বেকসুর খালাস পান।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts