যে কারণে কাঁদলেন সিএনএন উপস্থাপিকা [ভিডিও]

কাঁদলেন সিএনএন উপস্থাপিকা [ভিডিও]
Share Button

বিশ্বমিডিয়ায় এখন আলোচিত নাম ওমরান দাকনিশ। সম্প্রতি সিরিয়ার আলেপ্পোয় বিমান হামলার পর একটি বিধ্বস্ত ভবন থেকে ৫ বছর বয়সী শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

এরপর তার ভিডিও আর ছবি প্রকাশ করে সিরিয়ার বিদ্রোহীরা।

রক্তাক্ত, সারা গায়ে ধূলি মাখা ভীত শিশুটি একটি অ্যাম্বুলেন্সের সিটে বসে রয়েছে, একটু পরেই সে নিজের মুখে হাত বুলিয়ে রক্ত দেখতে পেয়ে চমকে ওঠে।

বিমান হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া একটি শিশুকে উদ্ধারের পর তোলা ভিডিও এবং ছবিটি সারা বিশ্বকে হতবাক করে দিয়েছে।

আর শিশু ওমরানের সেই আলোচিত ভিডিওর খবর পাঠ করতে গিয়ে স্তম্ভিত মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন-এর উপস্থাপিকা কেট বলদুয়ান। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

শুক্রবারের যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় দুপুরের এক বুলেটিনের সময় সিরিয়ার বিমান হামলার ঘটনা নিয়ে খবর প্রচার হচ্ছিল। তখন টিভিতে ওমরানের ছবি ভাসছিল।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে কেট বলতে থাকেন, ‘এখানে কোনো কান্না নেই। সে একবারের জন্যও কাঁদেনি। বালকটি পুরোপুরিভাবে স্তব্ধ হয়ে গেছে।’

তিনি বলতে থাকেন, ‘ছবিটা আমাকে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করেছে। আমি এখানে কাঁদছি। কিন্তু ওখানে কোনো কান্না নেই।’ এসময় কেটের চোখ পানিতে ছলছল করছিল। তার কণ্ঠ বারবার কেঁপে যায়।

কেট বলেন, ‘সিরিয়ায় ওমরানের মতো হাজার হাজার শিশু যুদ্ধ থেকে বাঁচার চেষ্টা করে যাচ্ছে। আলেপ্পোয় গত ৫ বছরে সাড়ে ৪ হাজার শিশু মারা গেছে।’

খবর পড়তে গিয়ে তার মুখ দিয়ে আর কথা বের হচ্ছিল না। উপসংহার টানেন এইভাবে, ‘আমরা আপনাদের বলতে চাই, এ হলো ওমরান, যে এখনও বেঁচে আছে।’

উল্লেখ্য, গত বুধবার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর কোটের্জি জেলার একটি ভবনে রাশিয়ান বিমান হামলার পর ওই শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। সে সময় এই ছবিটি তোলা হয়। ওই হামলায় তিনজন নিহত আর ১২ জন আহত হয়।

পরে ওমরান দাকনিশের ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি ও ভিডিওতে দেখা যায়, রক্তাক্ত, সারা গায়ে ধূলি মাখা ভীত শিশুটি একটি অ্যাম্বুলেন্সের সিটে বসে রয়েছে, একটু পরেই সে নিজের মুখে হাত বুলিয়ে রক্ত দেখতে পেয়ে চমকে ওঠে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts