যৌনকর্মীদের আর শাস্তি দেবে না চীন

যৌনকর্মীদের শাস্তির বিধান বাতিল করেছে চীন। চীনের বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানায় এখন থেকে পুলিশ আর যৌনকর্মীদের গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠাবে না।

উল্লেখ্য চীনে এর আগে যৌন কর্মীদের গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠাতো পুলিশ। সেখানে কমপক্ষে ছয় মাসের একটি শিক্ষামূলক কোর্সে অংশগ্রহণ করতে হতো তাদের। পাশাপাশি তাদেরকে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে বাধ্য করা হতো।

29 শে ডিসেম্বর চীনের বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানায় এই গ্রেপ্তার ও শাস্তির বিধান বাতিল করা হয়েছে।

যদিও চীনে এখনো যৌনকর্ম নিষিদ্ধ।

প্রায় 20 বছর আগে তিন যৌনকর্মীদের গ্রেফতার করে সংশোধনাগারে শিক্ষামূলক কোর্সে অংশ গ্রহণ করার বিধান চালু করে।

চীনের বার্তা সংস্থার বিবৃতিতে জানানো হয় এই বিধান এখন ধীরে ধীরে কম প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে।

তবে 2013 সালে এশিয়ার একটি এনজিও এ বিষয়ে একটি জরিপ চালিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল।

সেখানে তারা 30 জন যৌনকর্মীর সাক্ষাৎকার নিয়েছিল দুটি শহরে অনুসন্ধান চালিয়ে।

ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছিল সংশোধনাগারে আসলে যৌনকর্মীরা কিছুই শেখে না। ফলে তারা সংশোধনাগার থেকে বের হয়ে খুব দ্রুতই আবার পূর্বের কাজে ফিরে যায়।

2013 সালে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ 140 জন যৌনকর্মীর সাক্ষাৎকার পাশাপাশি যৌনকর্মীদের খদ্দেরও পুলিশ এবং বিশেষজ্ঞদের সাক্ষাৎকার নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানে উল্লেখ করা হয় যৌনকর্মীদের প্রায়ই মারধর করে পুলিশ এবং তাদেরকে স্বীকারোক্তি দিতে বাধ্য করা হয়।

একজন যৌনকর্মী জানায় পুলিশ তাকে প্রতারণার মাধ্যমে স্বীকৃতি দিতে বাধ্য করেছে তাকে জানানো হয় 4-5 ঘন্টার ভিতরে সে মুক্তি পাবে।

অথচ সংশোধনাগার থেকে তাকে ছয় মাস পরে মুক্তি দেয়া হয়।

এশিয়া ক্যাটালিস্ট এর ডিরেক্টর সেন টিং টিং বলেন এাটক প্রথা বাতিল অবশ্যই ভালো দেখতে হবে যৌনকর্মীদের অধিকার সম্পর্কে আরো গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

তিনি দাবি করেন এই আটক প্রথা যতটা না যৌনকর্মীদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক ছিল তার থেকে বেশি প্রকাশ করা হয়েছিল তাদের এই পেশা বন্ধ যৌনকর্মীদের শাস্তি দেওয়ার জন্য।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও খবর...