রমজানে সৌদি আরবেও পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিলো বাংলাদেশিরা

রোজার নিয়ত ও ইফতারের দোয়া
Share Button

রমজান এলে সব দেশেই দামের উপর ছাড় বসে, শুধু বাংলাদেশেই দাম বাড়ে। এর ব্যতিক্রম হয়নি বাঙালি অধ্যুষিত সৌদি আরবের বিভিন্ন এলাকায়ও। রমজান মাস আসার সাথে সাথেই এসব এলাকার খোলা বাজারে বেড়ে যায় শাক-সবজি, ফল থেকে শুরু করে সব ধরনের ইফতার সামগ্রীর মূল্য। এর কারণ অবশ্য ওখানকার ব্যবসায়ীরাও বাংলাদেশি!

মঙ্গলবার সৌদি আরবে বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকার বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে এমন চিত্রই লক্ষ্য করা গেছে। ওইসব বাজারে ইফতার সামগ্রী তৈরিতে ব্যবহার হয় এমন সব সবজি এবং ফলের দাম কয়েকগুণ। আর এতে সমস্যায় পড়ছে স্বল্প আয়ের প্রবাসীরা।

অবশ্য এ বাড়তি দাম কেবল খোলা বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছেই। বড় বড় সুপার মার্কেটগুলাতে দাম আগের মতোই আছে। উল্টো কিছু কিছু পণ্যে দেয়া হয়েছে ছাড়।

খোলা বাজারে বাড়তি দাম কেন রাখা হচ্ছে এমন প্রশ্ন করতেই এক বিক্রেতা বলেন, ‘আমরা কি হরতাম (করবো) ভাই, মার্কেটে মালের বড় অভাব।’

তবে বাজার করতে আসা প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলছেন, মালের অভাব এটা ব্যবসায়িদের কথার কথা। মূলত
সুপার মার্কেটে অনেক লম্বা লাইন, আর মানুষ রোজা রেখে তেমন একটা দামা-দামি করে না। আর এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে খোলা বাজারের বিক্রেতারা সব পণ্যেই দ্বিগুণ দাম নিয়ে থাকে।

এদিকে রিয়াদের পান্ডা, ওথাইম নামের বড় দুটি সুপার মার্কেটে গিয়ে দেখা যায়, আগের মতোই সবকিছুর দাম রয়েছে, এমনকি কিছু কিছু পণ্যে রয়েছে ডিসকাউন্টও। সুপার মার্কেটে কলার দাম ৩ থেকে ৪ রিয়েল রাখা হলেও বাইরে এর দাম নেয়া হচ্ছে ৮ থেকে ১০ রিয়েল।

যদিও সৌদি আরাবের আইনানুযায়ী এটি নিষিদ্ধ। কিছু কিছু স্থান অবশ্য দোকান নিয়ে বসার জন্য নির্দিষ্ট করে দেয়া আছে। তারপরও একটু বাড়তি উপার্জনের জন্য প্রবাসীরা ফুটপাতে এসব দোকান খুলে বসে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts