লন্ডনে প্রথম মুসলিম মেয়র

Sadik-khan
Share Button

লন্ডনে প্রথমবারের মতো মুসলিম মেয়র নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত সাদিক খান। বৃহস্পতিবার সেখানে মেয়র নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন মেয়র নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নোংরা প্রচারণায় কলংকিত হয়ে ওঠা এই নির্বাচনে প্রার্থী মোট ১২ জন। প্রধান দুই প্রার্থীর একজন লেবার দলের সাদিক খান, অপরজন কনজারভেটিভ দলের জ্যাক গোল্ডস্মিথ।

গার্ডিয়ান জানায়, মেয়র নির্বাচনের পাশাপাশি বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যে স্থানীয় সরকার নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হয়েছে। মেয়র নির্বাচনে সাদিক খান জয়ী হতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। নির্বাচিত হলে তিনি হবেন লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র। তার প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পরিবেশবিদ ও রক্ষণশীল দলের জ্যাক গোল্ডস্মিথ। সাদিক খান মুসলিম হওয়ায় গোল্ডস্মিথ প্রচারণাকালে তার সঙ্গে চরমপন্থীদের যোগসূত্র থাকার বিষয়টি প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা চালান। যদিও খান সরাসরি এ অভিযোগ নাকচ করেন।

বুধবার প্রকাশিত একাধিক জরিপের ফলাফল বলছে, প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রার্থী সাদিক খান ১৪ থেকে ২০ শতাংশ ভোটের ব্যবধানে বিজয় লাভ করতে যাচ্ছেন। শেষ মুহূর্তের জরিপে সাদিকের আরও এগিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, তার ধর্মীয় পরিচয়কে হাতিয়ার করে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথের আক্রমণকে ভালো চোখে দেখছেন না ভোটাররা। ইউগভের এক জরিপে লন্ডনের প্রতি ২০ শতাংশ বাসিন্দা গোল্ডস্মিথের প্রচারণাকে ‘নোংরামি’ বলে আখ্যায়িত করেছেন।

পাকিস্তানের অভিবাসী বাস ড্রাইভারের ছেলে খান (৪৫) একজন মানবাধিকার আইনজীবী। অন্যদিকে গোল্ডস্মিথ (৪১) ইংল্যান্ডের ধনকুবের জেমস গোল্ডস্মিথের ছেলে।

দক্ষিণ লন্ডনে বুধবার রাস্তার দোকানগুলো পরিদর্শনকালে খান বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, তার প্রতিদ্বন্দ্বী পুরোপুরি নেতিবাচক, বিভেদপূর্ণ ও বেপরোয়া প্রচারণা চালিয়েছেন। কিন্তু প্রথম দিন থেকেই আমার প্রচারণা ছিল ইতিবাচক। আমি কথা বলেছি আমার অভিজ্ঞতা, মূল্যবোধ এবং স্বপ্ন নিয়ে যা লন্ডনবাসীর মেয়র হতে আমাকে সাহায্য করবে।

লন্ডনের মেয়র নির্বাচনে জয়ী প্রার্থী রক্ষণশীল বরিস জনসনের স্থলাভিষিক্ত হবেন। জনসনের আট বছরের মেয়াদে লন্ডনে ২০১২ সালে অলিম্পিক আয়োজন উল্লেখযোগ্য ঘটনা। লন্ডনে মেয়র নির্বাচন ছাড়াও স্কটল্যান্ড, ওয়েলস, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হচ্ছে প্রাদেশিক নির্বাচন। স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলে। স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ৮টা (বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা) থেকে লন্ডনের মেয়র নির্বাচনের ভোট গণনা শুরু হবে। ফল জানা যাবে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার রাত ১০টার দিকে। উল্লেখ্য, লন্ডনে লেবার দলের সমর্থন বেশি। এখানে ৭৩টি সংসদীয় আসনের ৪৫টিই লেবারের দখলে। তবে এমন দুর্গে গত দুই মেয়াদে রক্ষণশীল দলের জনসন নির্বাচিত হওয়ায় আশংকায় রয়েছে লেবার দল। বলা হচ্ছে, ভোটার উপস্থিতির ওপরই নির্ভর করবে ফলাফল। গত নির্বাচনে ভোট দিয়েছিলেন মাত্র ৩৫ শতাংশ ভোটার। লন্ডনে ৮৬ লাখ মানুষ বসবাস করে।

সাদিক খান, বয়স ৪৫

জন্ম : পাকিস্তানি অভিবাসী বাসচালকের সন্তান। দক্ষিণ পশ্চিম লন্ডনের ওয়ান্ডসওয়ার্থে অভিবাসী প্রতিবেশীদের সঙ্গে বেড়ে ওঠেন।

শিক্ষা : ইউনিভার্সিটি অব নর্থ লন্ডনে আইনে পড়াশোনা করেছেন।

পেশা : দক্ষিণ লন্ডনে ২০০৫ সাল থেকে নির্বাচিত এমপি। ২০০৯-১০ সালে প্রধানমন্ত্রী গর্ডন ব্রাউনের অধীনে প্রাদেশিক পরিবহনমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন।

দল : লেবার পার্টি।

পরিবার : স্ত্রী সাদিয়া আহমেদ একজন আইনজীবী। তিনিও দক্ষিণ লন্ডনে বড় হয়েছেন। তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

বই : ফেয়ারনেস নট ফেভার : হাউ টু রিকানেক্ট উইথ ব্রিটিশ মুসলিমস

জ্যাক গোল্ডস্মিথ, বয়স ৪১

জন্ম : ইংল্যান্ডের ধনকুবের জেমস গোল্ডস্মিথের ছেলে। তার ভাই জেমিমা খান একজন বিখ্যাত সাংবাদিক ও চলচ্চিত্র প্রযোজক।

শিক্ষা : এলিটদের জন্য বিখ্যাত প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান ইটোন কলেজে পড়াশোনা করেছেন। কিন্তু মাদক গ্রহণের দায়ে বরখাস্ত হয়েছিলেন।

পেশা : ২০১০ সালে রিচমন্ড পার্ক থেকে নির্বাচিত এমপি।

পরিবার : লন্ডনের বিখ্যাত ব্যাংকিং পরিবারের সদস্য এলিস রুথচিল্ডকে বিয়ে করেছেন। তার ভাই বিয়ে করেছেন রুথচিল্ডের বোনকে।

বই : দ্য কন্সট্যান্ট ইকোনমি : হাউ টু ক্রিয়েট অ্যা স্টেবল সোসাইটি।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts