সালমান তাসিরের হত্যাকারী মুমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর

সালমান তাসিরের হত্যাকারী মুমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর
Share Button

সালমান তাসিরের হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকরসালমান তাসিরের হত্যাকারী মুমতাজ কাদরি
পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের গভর্নর সালমান তাসিরের হত্যাকারী তার দেহরক্ষী মুমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। খবর ডন অনলাইনের।

পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় সময় সোমবার ভোর সাড়ে ৪টায় রাউয়ালপিন্ডির আদিলিয়া কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

মুমতাজ কাদরি ছিলেন একজন পুলিশ কমান্ডো। তিনি তাসিরের দেহরক্ষী (বডিগার্ড) হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন।

দেশটির কঠোর ধর্ম অবমাননা আইন সংস্কারের দাবি জানানোয় সালমানের দেহরক্ষী কাদরি ২০১১ সালের ৪ জনুয়ারি রাজধানী ইসলামাবাদে তাকে গুলি করে হত্যা করেন।

এর পরের বছরের ১ অক্টোবর হত্যার দায়ে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেন পাকিস্তানের আদালত। এরপর মুমতাজ কাদরি প্রাণভিক্ষা চাইলে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট মামনুন হুসাইন তা প্রত্যাখ্যান করেন।

স্থানীয় পুলিশের সিনিয়র কর্মকর্তা সাজিদ গন্ডোল বলেন, ‘আমি নিশ্চিত করে বলছি- মুমতাজ কাদরিকে আদিলিয়া জেলে সোমবার সকালে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।’

এ ছাড়া কারা কর্মকর্তারাও মুমতাজ কাদরির ফাঁসি কার্যকরের খবর নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠনগুলোর অনুসারিরা মুমতাজকে ‘বীর’ বলে সম্বোধন করছে। ফাঁসি কার্যকরের প্রতিবাদে তার সমর্থকরা রাওয়ালপিন্ডির সড়কে বিক্ষোভও করেছে। এ ঘটনার দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী সতর্ক অবস্থান নিয়েছে।

উদারপন্থী রাজনীতিক সালমান তাসির পাঞ্জাবের গভর্নর এবং পাকিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারির ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তিনি পাকিস্তানের ধর্ম অবমাননা বা ব্লাসফেমি আইন নিয়ে জোরালো সমালোচনা করতেন।

২০১০ সালে পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইনে খ্রিস্টান নারী আসিয়া বিবির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। এ ব্যাপারে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেছিলেন তাসির।

আসিয়া বিবিকে সমর্থন করায় সালমান তাসিরকে গুলি করে হত্যার কথা স্বীকার করেন মুমতাজ কাদরি। তার এ হত্যা পাকিস্তানের আলোচিত একটি গুপ্তহত্যার ঘটনা।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment