হিলারি ক্লিনটনকে হারাতে মরিয়া আওয়ামী লীগ!

Hillary Clinton
Share Button

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্বেগ-উৎকন্ঠা যেন তত বেড়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে সেখানকার একজন প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে ঠেকাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে আওয়ামী লীগ।

ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের সেখানকার নেতা-কর্মীরা প্রকাশ্যেই নেমেছেন একজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে।

তাদের কন্ঠে – হিলারিকে ঠেকাও। এমনকি মোটা অঙ্কের ডলার খরচ করে গণমাধ্যমে হিলারিকে বর্জনের বিজ্ঞাপন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ। এমন খবর প্রকাশিত হয়েছে সংবাদ মাধ্যমে।

আগামী ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট পদের চুড়ান্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এখন চলছে নিজ নিজ পার্টির ভেতরে প্রার্থী নির্বাচনের প্রাইমারী ভোট। এখন পর্যন্ত ডেমোক্রেট দলীয় প্রার্থী হিসাবে হিলারি ক্লিনটন এবং রিপাবলিক্যান পার্টির ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজ নিজ পার্টিতে এগিয়ে আছেন। গত মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কে দল দুটির প্রাইমারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে হিলারি ক্লিনটন শতকরা প্রায় ৫৮ ভাগ ভোট পেয়েছেন, তার দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বী ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স পেয়েছেন বাকি ভোট। এখন ডেলিগেট ও সুপার ডেলিগেট মিলিয়ে হিলারি ক্লিনটন সংগ্রহ করেছেন ১৯৩০টি ডেলিগেট। আর বার্নি স্যান্ডার্সের সংগ্রহ ১১৮৯টি ডেলিগেট।

ডেমোক্রেট দলের মনোনয়ন পেতে একজন প্রার্থীকে কমপক্ষে ২৩৮৩টি ডেলিগেট পেতে হবে। সে হিসেবে হিলারি ক্লিনটনকে আর মাত্র ৪৫৩টি ডেলিগেট পেতে হবে। এখনও কয়েকটি বড় রাজ্যে ডেমোক্রেটদের প্রাইমারি এবং ককাস নির্বাচন বাকি রয়েছে।

এর মধ্যে রয়েছে মেরিল্যান্ড (ডেলিগেট ১১৮টি), পেনসিলভ্যানিয়া (ডেলিগেট ২১০টি), ক্যালিফোর্নিয়া (ডেলিগেট ৫৪৬টি), নিউ জার্সি (ডেলিগেট ১৪২টি), কানেকটিকাট (ডেলিগেট ৭০টি), ডিলাওয়া (ডেলিগেট ৩০টি), রোড আইল্যান্ড (ডেলিগেট ৩৩টি), ইন্ডিয়ানা (ডেলিগেট ৯২টি), গুয়াম (ডেলিগেট ১২টি), ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া (ডেলিগেট ৩৭টি), ওরেগন (ডেলিগেট ৭৪টি), কেন্টাকি (ডেলিগেট ৬১টি), ভার্জিন আইল্যান্ড (ডেলিগেট ১২টি), পুয়েরটো রিকো (ডেলিগেট ৬৭টি), মোল্টানা (ডেলিগেট ২৭টি), নিউ মেক্সিকো (ডেলিগেট ৪৩টি), নর্থ ডাকোটা(ডেলিগেট ২৩টি), সাউথ ডাকোটা (ডেলিগেট ২৫টি), ওয়াশিংটন ডিসি (ডেলিগেট ৪৫টি)।

এই ১৮টি রাজ্যে এখনো মোট বাকি ১৬৬৮টি ডেলিগেটের প্রাইমারি এবং ককাস নির্বাচন। এসব প্রাইমারি ও ককাসে পরিচালিত জনমত জরিপে অধিকাংশ স্থানেই হিলারি এগিয়ে রয়েছেন। এগুলোর মাঝ থেকে কাঙ্খিত সংখ্যক ডেলিগেট সংগ্রহে হিলারি সহজেই বিজয় লাভে সক্ষম হবেন বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

অন্যদিকে নিউইয়র্কে রিপাবলিকান দলের প্রাইমারিতে শতকরা প্রায় ৬০ ভাগ ভোট পেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার দলীয় মনোনয়ন পেতে মোট ডেলিগেট লাগবে ১২৩৭টি। এখন পর্যন্ত তিনি মোট ৮৪৫টি ডেলিগেট সংগ্রহ করতে পেরেছেন।

তাকে আরও কমপক্ষে ৩৯২টি ডেলিগেট পেতে হবে। অন্যদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী টেড ক্রুজ ও জন কাসিচ তার ধারে কাছেও যেতে পারেননি। তারা দু’জনে মিলে যে ভোট পেয়েছেন তার চেয়ে একা বেশি ভোট পেয়েছেন ট্রাম্প। এর মধ্যে দিয়ে মনোনয়ন প্রায় নিশ্চিত করার কাছাকাছি রয়েছে হিলারি ও ট্রাম্প।

রিপাবলিক্যান দলীয় প্রার্থী ট্রাম্প প্রাইমারীতে এগিয়ে গেলেও তার উগ্র কথাবার্তা, বিশেষ করে মুসলমান ও ইমিগ্রান্টদের বিরুদ্ধে তার শক্ত বক্তব্যে ইমিগ্রেন্টদের ভাবিয়ে তুলেছে। তাই এসব ভোট ডেমোক্রেটদের পক্ষে যাবার সম্ভাবনা বেশি। সব মিলিয়ে পর্যবেক্ষকদের ধারণা, হিলারি ক্লিন্টনই হতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট।

তবে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের হিলারি বিরোধী ক্যাম্পেন ও টিভি বিজ্ঞাপন নিয়ে সেখানকার বাংলাদেশি কমিউনিটিতে আলোচনার ঝড় উঠেছে। বিশেষ করে দেখা যাচ্ছে, হিলারিকে ঠেকাতে সেখানকার আওয়ামী লীগ সমর্থকরা এই অবস্থান নিয়েছেন।

কেননা, নোবেল লরিয়েট ড. মুহাম্মদ ইউনুসের ব্যক্তিগত বন্ধু হিলারি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হলে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ সরকারের জন্য কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে -এমন আশঙ্কার কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা থেকেই বেরিয়ে এসেছে।

শুধু একবারই নয়, বেশ কয়েকবার শেখ হাসিনা এমন বক্তব্য দিয়েছেন, ড. ইউনূস চেয়ে আছেন হিলারীর দিকে। হিলারী প্রেসিডেন্ট হলে তাকে ক্ষমতা থেকে হটানো হবে। আর তাই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ নেতারা হিলারির প্রেসিডেন্ট হওয়া ঠেকাতে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারণায় নেমেছেন বলে

সেখানকার একটি অনলাইন পত্রিকা খবর প্রকাশ করেছে। খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতারা ডেমোক্রেট পার্টির অন্য প্রার্থী স্যান্ডার্সের পক্ষে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

এতে ব্যর্থ হলে পরবর্তীতে রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাবেন। এহেন অবস্থা দেখে অনেকের মনে প্রশ্ন, তবে কি আওয়ামী লীগ মনে করে, হিলারি ক্লিন্টন বিএনপির প্রার্থী? নইলে এত মরিয়া হয়ে তারা নামছে কেনো?

 

সূত্র:ziacyberforce.com

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts