ক্ষুদ্রঋণে ৮০০ কর্মী নেবে ব্র্যাক

ক্ষুদ্রঋণে ৮০০ কর্মী নেবে ব্র্যাক
Share Button

টেকসই দারিদ্র্য বিমোচনে তৃণমূলে ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচিতে ৮০০ কর্মী নেবে উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে ৩০০ জন ঋণ কর্মকর্তা এবং ৫০০ জন কর্মসূচি সংগঠক নিয়োগ দিতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে আবেদন প্রক্রিয়া। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। উন্নয়ন সেক্টরে কাজ করতে আগ্রহী প্রার্থীরা যে কোনো একটি পদে আবেদন করতে পারবেন।

যেভাবে করবেন আবেদন

আবেদন করতে হবে মানবসম্পদ বিভাগ বরাবর। আবেদনের সঙ্গে লাগবে সাদা কাগজে লেখা জীবনবৃত্তান্ত, সদ্য তোলা পাসপোর্ট আকারের দুই কপি ছবি, প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত সব শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদের ফটোকপি। আবেদনপত্র ও খামের ওপর আবেদনকৃত পদের নাম উল্লেখ করতে হবে। আবেদন ডাকযোগে কিংবা কুরিয়ারের মাধ্যমে মানবসম্পদ বিভাগে পৌঁছাতে হবে। আবেদনপত্রে উল্লেখ করতে হবে মোবাইল নম্বর। আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই শেষে মোবাইলে কল এবং খুদে বার্তার মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার স্থান। চূড়ান্তভাবে মনোনীত প্রার্থীকে জামানত হিসেবে পাঁচ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। ছয় মাস পর ফেরত দেয়া হবে জামানতের টাকা। আগ্রহী প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষার জন্য ডাকা হবে ঢাকার মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে।

আবেদনের যোগ্যতা

ঋণ কর্মকর্তার জন্য স্নাতকোত্তর এবং কর্মসূচি সংগঠকের জন্য হতে হবে স্নাতক। শিক্ষাজীবনের সব পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ বা শ্রেণী অথবা সমমানের জিপিএ/সিজিপিএ ২.৫০ থাকতে হবে। বয়স হতে হবে সর্বোচ্চ ৩৫ বছরের মধ্যে।

বেতন-ভাতা ও পদোন্নতি

ঋণ কর্মকর্তা পদের জন্য ১৭ হাজার এবং কর্মসূচি সংগঠক ১৩ হাজার টাকা। কর্মীদের নিরাপত্তা সুবিধা, আনুতোষিক, প্রদায়ক ভবিষ্যনিধি, স্বাস্থ্য বীমা, মাইক্রোফাইন্যান্স ভাতাসহ বেশ কিছু আকর্ষণীয় সুবিধা রয়েছে। সংস্থার নিয়ম অনুসারে টার্গেট পূরণ এবং বাৎসরিক পারফরম্যান্সের ওপর রয়েছে বেশ কিছু প্রণোদনা। আছে প্রভিডেন্ট ফান্ড ও সার্ভিস বেনিফিট, বছরে দুটি উৎসবভাতা, প্রতিবছর ইনক্রিমেন্ট ও বীমা সুবিধা। কাজ শুরুর পর যোগ্যতাবলে রয়েছে পদোন্নতির সুযোগ। কর্মী নিয়োগে ব্র্যাক সম-সুযোগ প্রদানে বিশ্বাসী। নারীদের ক্ষমতায়নে বিশ্বাসী হওয়ায় নিয়োগের ক্ষেত্রেও তারা নারীদের প্রাধান্য দেবেন। তবে নারী-পুরুষ যে কেউ এই পদগুলোতে আবেদন করতে পারবেন।

পরীক্ষা পদ্ধতি

বাংলা, গণিত, ইংরেজিসহ সাধারণ জ্ঞানের ওপর লিখিত প্রশ্ন আসে। এ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তেমন একটা কঠিন হয় না। তাই এ নিয়ে ভয়ের কিছু নেই। সাধারণত ১০০ নম্বরের মধ্যে ৬০ লিখিত, ৪০ ভাইভায়। যেহেতু ফিল্ড লেভেলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কাজ করতে হবে, তাই মিশুক ও বিরূপ পরিস্থিতিতে খাপ খাইয়ে নেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে।

ঋণকর্মীর কাজ

অনেকে ঋণকর্মীর কার্যপরিধি না জেনেই আবেদন করে বসেন। এতে পরে নানা ঝামেলায় পড়তে হয়। ব্র্যাকে নিয়োগপ্রাপ্তরা কাজ করবেন ঋণ কার্যক্রমে। ঋণ কর্মকর্তা ও কর্মসূচি সংগঠকদের কর্মস্থল হবে ব্র্যাকের মাঠ কার্যালয়ে বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকায়। ক্ষুদ্রঋণ ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ দেয়ার মাধ্যমে পিছিয়ে থাকা স্বল্প আয়ের মানুষের উদ্যোগকে সম্প্রসারিত করতে এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দারিদ্র্য দূরীকরণে ভূমিকা রাখতে তারা কাজ করবেন। জনগোষ্ঠীকেন্দ্রিক মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচিতে ঋণ দেয়া ও টাকা সংগ্রহের কাজ করবেন তারা।

কাজ করতে পারবেন বিদেশেও

আর্থিক ও সামাজিক কার্যক্রমের মাধ্যমে জীবন ও জীবিকার মান উন্নয়নে ১৯৭২ সাল থেকে ব্র্যাক কাজ করে যাচ্ছে। প্রায় ১৭ হাজার কর্মীর মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে দুই হাজার ২০০ শাখায় ৫০ লাখেরও বেশি সদস্যের সঞ্চয় ও ক্ষুদ্রঋণ সেবা দিয়ে আসছে সংস্থাটি। ব্রাঞ্চগুলোয় কর্মী বাড়ানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। এ কারণেই এত নিয়োগ। সামনে আরও নিয়োগ আসতে পারে। বাংলাদেশ ছাড়াও আফগানিস্তান, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, সিয়েরা লিওন, দক্ষিণ সুদান, উগান্ডা, লাইবেরিয়া ও তানজানিয়ায় ব্র্যাকের মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচির কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। তাই দক্ষ কর্মীদের বিদেশে কাজ করারও সুযোগ রয়েছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ ২৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে আবেদন করতে হবে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment