`আমরা বিচারের নামে তামাশা চাই না’

Chief-Justice-sk_sinha+Motiur Rahman Nizami

আমরা বিচারের নামে তামাশা চাই না। কারণ এই মানবতবিরোধী অপরাধের বিচার সারা বিশ্ব পর্যবেক্ষণ করছে। এজন্য সকল আইনি সুযোগ-সুবিধা দিয়ে এবং যাতে মানবাধিকার লঙ্ঘিত না হয়, সে বিষয় লক্ষ্য রেখেই বিচার করা হচ্ছে।
মঙ্গলবার ফাঁসির রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদনের শুনানির এক পর্যায়ে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা এসব কথা বলেন।

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চে মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৯টায় এ শুনানি শুরু হয়। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

আদালতে নিজামীর পক্ষে শুনানিতে তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘মূল হোতাদের ছেড়ে দিয়ে ৪০ বছর পর চুনোপুঁটিদের বিচার করা হচ্ছে। রাজনৈতিকভাবেই এই বিচার করা হচ্ছে।’

এরপর প্রধান বিচারপতি তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে যে নৃশংসতা হয়েছে, সেটিকে কসোভো ও যুগোশ্লোভিয়ার যুদ্ধের সঙ্গে তুলনা করলে হবে না। এটিকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় হিটলারের নৃশংসতার সঙ্গে তুলনা করতে হবে।’

আদালতে নিজামীর পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘এটা বলার অপেক্ষা রাখে না, মতিউর রহমান নিজামী মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছিলেন। কিন্তু যেসব অপরাধের অভিযোগ তার বিরুদ্ধে আনা হয়েছে, তিনি এগুলো করেছিলেন কি না সেটা বিবেচ্য। ওই সময় (মুক্তিযুদ্ধকালে) নিজামীর বয়স, অবস্থান ও ক্ষমতার সক্ষমতার বিচারে তিনি কতটুকু অপরাধ করতে পারেন, সেটিও বিবেচ্য বিষয়।’

এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘তিনি (নিজামী) মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা করেছেন, এটি কি তার অপরাধ প্রমাণের জন্য যথেষ্ট নয়?’ জবাবে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতার জন্য দালাল আইনে তার বিচার হচ্ছে না। বিচার হচ্ছে মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য।’

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts