খালেদার মামলা পুনঃতদন্তের আবেদন খারিজ

আত্মসমর্পণ করতে আদালতে খালেদা জিয়া
Share Button

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার একাংশের (উৎস সম্পর্কিত অংশ) ফের তদন্ত চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার করা রিভিশন (পুনর্বিবেচনা) আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।

এরআগে গতকাল এ সংক্রান্ত শুনানি শেষ হয়। শুনানি শেষে রায়ের জন্য আজকের দিন ধার্য ছিল।

এতিমদের জন্য বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন। আইনজীবী জাকির হোসেন মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘মামলার অভিযোগে বলা হচ্ছে, এই টাকা সৌদি আরব থেকে এসেছে। খালেদা জিয়া তা আত্মসাত করেছেন।’

‘কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কুয়েতের আমির এই টাকা দিয়েছেন। জিয়াউর রহমানের প্রতি ভালোবাসার নিদর্শন হিসেবে তার নামে একটা ট্রাস্ট করতে তিনি এই টাকা দেন। এই টাকা খালেদা জিয়া আত্মসাত করেননি। লাভসহ তা ব্যাংকে রয়েছে। এ কারণে আমরা ওই অংশ পুনঃতদন্তের আবেদন করেছি।’

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। তদন্ত শেষে দুদক ২০০৯ সালের ৫ অগাস্ট আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এর পাঁচ বছর পর ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ তৎকালীন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ বাসুদেব রায় অভিযোগ গঠন করে খালেদাসহ ছয় আসামির বিচার শুরুর নির্দেশ দেন।

খালেদা জিয়া ছাড়া মামলার অপর আসামিরা হলেন- মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, খালেদার বড় ছেলে তারেক রহমান, সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

খালেদা জিয়া, কাজী সালিমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদ জামিনে আছেন। খালেদার বড় ছেলে তারেক রহমান গত নয় বছর ধরে দেশের বাইরে, তার বিরুদ্ধে এ মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। এছাড়া কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান মামলার শুরু থেকেই পলাতক।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts