শ্রমিককে গণধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ; অতঃপর

Rape logo 1

নরসিংদীর পলাশে এক কারখানা শ্রমিককে গণধর্ষণ ও ধর্ষণের সময় ভিডিও ধারণের অপরাধে ৬ আসামীকে মৃত্যুদন্ডাদেশ আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও মৃত্যুদ-প্রাপ্তদের প্রত্যেককে আলাদাভাবে এক লাখ টাকা করে অর্থদ- ও দুইজনকে আলাদাভাবে পর্ণোগ্রাফি আইনে ২ লাখ টাকা করে অর্থদ-সহ ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড- দেয়া হয়।

মঙ্গলবার বিকালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শামীম আহাম্মদ এ আদেশ দেন।
দ-প্রাপ্তরা হলেন, পলাশ উপজেলার বাগপাড়া গ্রামের মো: কুদ্দুছ আলীর ছেলে আশিকুর রহমান (৩৫), তাজুল ইসলামের ছেলে ইলিয়াছ (২১) সিরাজ শেখের ছেলে রুমিন (২০) হানিফার ছেলে রবিন (২০), মন্টু মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম (২২) ও আব্দুস ছালামের ছেলে আ: রহমান।

মামলার বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৩ মে মে পলাশ উপজেলার বাগপাড়া এলাকায় অবস্থিত প্রাণ আরএফএল কোম্পানীর এক নারী শ্রমিক কারখানায় ডিউটি শেষে কারখানার মেসে ফিরছিলেন। এসময় জনতা জুটমিলের সামনের সড়কে পৌছলে আসামীরা ওই নারী শ্রমিককে জোরপূর্বক ধরে নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। পরে আসামীরা তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় এক আসামী তার মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করে। পরে হুমকি দিয়ে ওই নারী শ্রমিককে ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় প্রাণ আরএফএল কোম্পানীর এক কর্মকর্তা বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামী করে পলাশ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বিজ্ঞ আদালত ১২ জন স্বাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে সকল আসামির উপস্থিতিতে ৬ মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রদান করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি এম.এন অলি উল্লাহ মামলার আদেশের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts