ক্লান্তি ঝেড়ে ফেলুন মাত্র ৬টি উপায়ে

ক্লান্তি কাটানোর ৬ উপায়

সারাদিনের দৌড়-ঝাঁপের ফলে কি সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়েন? ঠিক কী কারণে তা হচ্ছে, তা বোঝা যাচ্ছে না তো? কী ভাবে এনার্জেটিক থাকবেন, তা জানতে মেনে চলুন এই ৬ নিয়ম।

১) জল পান করুন

সারাদিনে যতই কাজ থাকুক না কেন পর্যাপ্ত পরিমাণ জল পান করুন। জলের পরিমাণ কমে গেলে বডি ডিহাইড্রেটেড হয়ে যায়। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ডিহাইড্রেশনের ফলেই সহজে ক্লান্ত হয়ে পড়ি আমরা। কারণ, বডি ডিহাইড্রেটেড হলে রক্ত সঞ্চালন কমে যায়। ফলে রক্তের মাধ্যমে দেহে প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান হয় না।

২) আয়রনযুক্ত খাবার খান

আয়রনের অভাব হলে দেহের পেশীতে অক্সিজেনের যোগান কম হয়। এর থেকে আপনার অ্যানিমিয়াও হতে পারে। প্রতিদিনের ডায়েটে আয়রনের যোগান বাড়াতে রাজমা, তোফু সবুজ শাক-সব্জি, ডিম, বাদাম রাখুন।

৩) ব্রেকফাস্ট এড়াবেন ন

তাড়াহুড়োয় অনেকেই দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিল মানে ব্রেকফাস্ট এড়িয়ে চলেন। এতে কিন্তু হিতে বিপরীত হয়। ফলে এটি স্কিপ করলে সারাদিনে ক্লান্তি এসে জড়ো হবে আপনার দেহে। পারফেক্ট ব্রেকফাস্ট হল সেটাই যাতে কার্বোহাইড্রেড, প্রোটিন ও ফ্যাটের কম্বিনেশন রয়েছে। সকালে উঠে এক গ্লাস দুধের সঙ্গে দু’টো টোস্ট-সহ ডিম রাখুন। সঙ্গে থাকুক যো কোনও একটি মরসুমি ফল।

৪) জিমে যাওয়া ছাড়বেন ন

যতই কাজের প্রেসার থাকুন, ভুলেও জিমের রুটিন বদলাবেন না। ওয়ার্কআউটের ফলে দেহে ‘হ্যাপি হরমোন’ ছড়িয়ে পড়ে। ফলে আপনি এনার্জিও তুঙ্গে থাকে।

৫) একটু ব্রেক নিন

কোরিয়ারের দিকে মন দিতে গিয়ে ওয়র্নআউট হয়ে যাচ্ছেন না তো! অফিস যেমন জরুরি, তেমনই জরুরি আপনার স্বাস্থ্য। ফলে কাজের চাপে একটু ব্রেক নিন। দিন তিনেকের ছুটি বা উইকএন্ডে পরিবারের সঙ্গে ছোট্ট ট্রিপের ফলে আপনার ক্লান্তি সরে যেতে পারে।

৬) ওয়াইন বা হইস্কি বর্জন

ঘুমোতে যাওয়ার আগে কি ওয়াইন বা হইস্কির গ্লাসে একচুমুক না হলে মন খারাপ হয়? যতই লোভনীয় মনে হোক না কেন এতে কিন্তু আপনার শরীরে ক্ষতিই হচ্ছে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অ্যালকোহল ড্রিঙ্কের ফলে শরীরে ‘অ্যাড্রেনালিন রাশ’ হয়। ফলে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে।

 

লেখাটি পছন্দ হলে প্লিজ Share করুন

এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ :

Related posts

Leave a Comment